HDD, Memory Card, Pendrive, CD or DVD সব ধরনের মেমরি থেকে ফরমেট অথবা ডিলেট হয়ে যাওয়া ফাইল রিকভার করুন

বিভিন্ন সময় আমরা আমাদের কম্পিউটার, মেমরি কার্ড, পেনড্রাইভে সেভ করা ভাইল ডিলেট করে ফেলি। কখনো ইচ্ছে করে আবার কখনো বা অনিচ্ছাকৃতভাবে। কিন্তু দেখা যায় অনেকদিন পরে ওই ডিলেট করা ফাইল প্রয়োজন পড়ে যায়। তখন অনেক কম্পিউটার ব্যবহারকারী রিকভার করতে জানেন না বলে শুধুই আফসোস করেন আবার যারা বিভিন্ন ব্লগ বা কারো কাছ থেকে সফটওয়্যার সংগ্রহ করে রিকভার করতে পারেন তাদের মধ্যে অনেকেই অনেকগুলো সফটওয়্যার ব্যবহার করে অনেক চেষ্টা করেও ফাইল আর উদ্ধার করতে পারেন না। ফাইল রিকভার করা কঠিন কোন কাজ না। আর এর জন্য আপনাকে আইটি এক্সপার্ট ও হতে হবে না। আপনার দরকার শুধু ভাল একটা সফটওয়্যার আর একটু নির্দেশনা যা আমি আপনাদের আজ আমার এই লেখায় দেয়ার চেষ্টা করব। এবারে কাজ শুরু করি। প্রথমেই এই কাজের জন্য মাত্র ৩.৩২ মেগাবাইটের অসাধারণ যে সফটওয়্যারটি আমরা ব্যবহার করব সেটা এই লিংক থেকে ডাউনলোড করে নিন। $119 ডলার মূল্যের এই সফটওয়্যারটি আপনাদের জন্য সম্পূর্ণ ফ্রি কিগেনসহ ফুল ভার্শন মিডিয়াফায়ারে আপলোড করা হয়েছে। সফটওয়্যারটি Windows XP, Windows 7, Windows Vista 32 & 64 bit সকল রকম ব্যবহারকারীরা ব্যবহার করতে পারবেন। এবার জেনে নিন, সফটওয়্যারটি ব্যবহার করে আপনি কি কি ফিচার পাবেন আর কি ধরনের ফাইল উদ্ধার/রিকভার করতে পারবেন।

১. Deleted Partition Recovery: ডিলেটকৃত FAT, NTFS or exFAT যে কোন ফাইল সিস্টেমের পার্টিশন রিকভার করা যাবে।

২. Recovery from Formatted Partition: ফরমেটকৃত পার্টিশন রিকভার করা যাবে।

৩. Formatted File/Folder Recovery: ফরমেটকৃত লজিক্যাল পার্টিশনের সব ধরনের ফাইল এবং ফোল্ডার রিকভার করা যাবে।

৪. Advanced Photo Recovery: হার্ডডিস্ক, পেনড্রাইভ এবং মেমরি কার্ড থেকে ফরমেট অথবা ডিলেটকৃত যে কোন ছবি যেমনঃ JPG, BMP, GIF এবং PNG ফরমেট এর ফাইল উদ্ধার করা যাবে। তাছাড়া আপনি চাইলে ইচ্ছামত আরও যে কোন ফরমেট Add করে রিকভার করতে পারবেন।

৫. Optical Media Recovery: অপটিক্যাল মিডিয়া যেমনঃ CD/DVD, CD ROM, CD-RW, DVD, DVD-RW, and Blue-ray disc এর সকল ধরনের Corrupted এবং Damaged ফাইল রিকভার করা যাবে। সফটওয়্যারটি CD এবং DVD তে সাপোর্ট করে এমন সব ধরনের ফাইল সিস্টেম যেমনঃ ISO 9660, Joliet, ISO 9660:1999, UDF, UDF Packet Writing, IFO/VOB Video, HFS, and Rock Ridge ইত্যাদি রিকভার করার ক্ষমতা রাখে।

৬. Raw Recovery: এই ফিচারটি ব্যবহার করে HDD, Memory Card, Pendrive, CD অথবা DVD থেকে যে কোন ফাইল উদ্ধার করলে প্রতিটি ফরমেট এর ফাইল আলাদা আলাদা ফোলডার করে প্রিভিউ শো করবে। ফলে আপনি আপনার ইচ্ছামত যে কোন ফরমেট এর ফাইল প্রিভিউ লিষ্ট থেকে রিকভার করতে পারবেন।

৭. Audio/Video Recovery: হার্ডডিস্ক, পেনড্রাইভ এবং মেমরি কার্ডের সকল ধরনের ডিলেটকৃত অডিও, ভিডিও, মুভি, এ্যানিমেটেড ফাইলসহ যে কোন ধরনের মিডিয়া ফাইল রিকভার করা যাবে।

৮. Preview Before Recovery: সফটওয়্যারটি ফাইল সার্চ করে একটা প্রিভিউ লিষ্ট তৈরী করে যেখান থেকে খুব সহজে আপনি শুধুমাত্র আপনার প্রয়োজনীয় ফাইল অথবা ফোল্ডার সিলেক্ট করে রিকভার করতে পারবেন।

৯. Deleted Database Recovery: বিভিন্ন ডাটাবেজ যেমনঃ Oracle, SQL Server, MS Access ইত্যাদির ডিলেট বা হারিয়ে যাওয়া ফাইল রিকভার করে।

১০. Auto Update Wizard: অটো আপডেট উইজার্ড ব্যবহার করে আপনি সফটওয়্যারটির আপডেট ভার্সন ইন্টারনেট থেকে আপনার কম্পিউটারে ইনস্টল করতে পারবেন। কিন্তু আমরা সফটওয়্যারটিতে কিগেন ব্যবহার করেছি। আপডেট করলে রেজিষ্ট্রেশন চলে যাবে। তাই আপনাদের এই ফিচারটি ব্যবহার করতে নিষেধ করছি। কেউ সফটওয়্যারটি আপডেট করবেন না। তবে যদি ভুলক্রমে আপডেট করেই ফেলেন তাহলে আনইনস্টল করে আবার ইনষ্টল করে কিগেন দিয়ে রেজিষ্ট্রেশন করে নিলেই হবে।

১১. Deleted File Recovery: সব ধরনের ডিলেটকৃত ফাইল যেমন MS Word, Access, Excel, PowerPoint, BKF, ZIP, RAR, EXE, PDF ইত্যাদিসহ সকল ফরমেট এর ফাইল রিকভার করা যায়।

১২. Signature Based Recovery: কিছু ফাইল বা সফটওয়্যার আছে যেগুলোতে Signature ব্যবহার করা হয়ে থাকে। সফওয়্যারটিতে এইসব Signature করা ফাইল আদালাভাবে রিকভার করার জন্য একটি ফিচার রয়েছে।

১৩. Applying Compression to Recovered Files: এই ফিচারটি ব্যবহার করে আপনি রিকভারকৃত ফাইলগুলো কমপ্রেস করে সেভ করতে পারবেন। ফলে আপনার পিসির মেমরি সেভ হবে।

১৪. CD to Boot your System: সফটওয়্যারটির এই ফিচার ব্যবহার করে সিডি থেকে বুট করে আপনি আপনার প্রয়োজনীয় ফাইল রিকভার করতে পারবেন।

১৫. Recover lost Data from Your RAID 5 server: RAID মানে Redundant Array of Inexpensive Disks সার্ভার থেকে হারিয়ে যাওয়া ফাইল রিকভার করা যাবে।

এছাড়াও Advance Tools, Imaging Tool, Cloning Utility, SMART Tool সহ আরও বিভিন্ন ফিচার রয়েছে সফটওয়্যারটিতে।

অনেকে হয়ত বিরক্ত হয়ে ভাবছেন সফটওয়্যারটি দিয়ে কি কি করা যাবে তা নিয়ে এতো আলোচনা করার কি দরকার। আসলে আপনার ইচ্ছা হলে ফিচারগুলো পড়তে পারেন ইচ্ছা না হলে এড়িয়ে যেতে পারেন। তবে ফিচার নিয়ে আমার লেখার উদ্দেশ্য হল, হয়ত সবার সব ফিচার কাজে লাগবে না। তাই আপনি যে কাজটি করবেন তা এই সফটওয়্যার দিয়ে করা যাবে কিনা তা যেন আপনি সহজেই এই ফিচার সম্পর্কিত বিস্তারিত আলোচনা থেকে জানতে পারেন এবং এই সফটওয়্যারটি আপনার কাজে আসবে কি আসবেনা তা বুঝতে পারেন।

এবার আমরা কিভাবে রিকভার করতে হয় তা নিয়ে আলোচনা করব। যদিও সফটওয়্যারটি ব্যবহার করা খুবই সহজ তবুও অনেক কম্পিউটার ব্যবহারকারী আছেন যারা কোন রকম সফটওয়্যার ব্যবহারে অভ্যস্ত না। তাদের জন্য যতটুকু সম্ভব আলোচনা করছি। প্রথমে ডাউনলোডকৃত সফটওয়্যারটি আপনার কম্পিউটারে সেটাপ দিন। এখন সফটওয়্যারটি ওপেন করুন তাহলে নিচের ছবির মত দেখতে পাবেন।

সফটওয়্যারটিতে উপরের দিকে লক্ষ্য করুন তিনটি ট্যাব আছে। 1. Data Recovery, 2. Recovery from Image, 3. Advance Option আমরা এখন Data Recovery ট্যাবে আছি আর এটিতেই মূলত আমরা কাজ করব। বাকি দুইটা ট্যাব এর কাজ সংক্ষিপ্ত আকারে বলে দিচ্ছি। Recovery from Image এই অপশনটা ব্যবহার করে আপনি কোন ইমেজ ফাইল থেকে ডাটা রিকভার করতে পারবেন। আর Advance Option ট্যাব এ গেলে আরও তিনটি অপশন দেখতে পাবেন প্রথমটা Create Image এটি দিয়ে ইমেজ ফাইল তৈরী করা যাবে। দ্বিতীয়টা Clone Drive এটির সাহায্যে আপনার হার্ডডিক্স এর Clone Media তৈরী করে Backup রাখতে পারবেন আপনার পিসিতে সংযুক্ত করা অন্য কোন External Hard Disc এর মধ্যে। এবং পরে যদি আপনার হার্ডডিস্ক এর কোন সমস্যা হয় ঐ হার্ডডিস্ক থেকে রিকভার করতে পারবেন। তৃতীয় এবং শেষ অপশন Drive Stats এর সাহায্যে আপনার হার্ডডিস্কে কোন Bad Sector থাকলে তা নির্ণয় করতে পারবেন।

এখন আমরা প্রথম ট্যাব মানে Data Recovery তে কাজ করব। Data Recovery এর নীচে আরও তিনটি অপশন দেখতে পাবেন। আমরা একটা একটা করে তিনটার কাজই করব।

 ১. Drive Recovery: Drive Recovery অপশন ব্যবহার করে হার্ডডিস্ক, পেনড্রাইভ, মেমরি কার্ড ও সব ধরনের USB মেমরি থেকে সকল প্রকার ফাইল ফরমেটের ডিলেটকৃত এবং ফরমেটকৃত ফাইল ও ফোল্ডার রিকভার করা যাবে। আপনি যদি পেনড্রাইভ অথবা মেমরি কার্ডের ডাটা রিকভার করতে চান তবে কাজ শুরু করার আগে আপনার মেমরিটি USB ড্রাইভে প্রবেশ করান। এখন কাজ শুরু করতে প্রথমে Drive Recovery Option এ প্রবেশ করুন। সহজে বোঝার জন্য নিচে চিত্র দেখুন।

এখন যে ড্রাইভ এর ডাটা রিকভার করতে চান সেই ড্রাইভটি সিলেক্ট করুন।

ড্রাইভ সিলেক্ট করার সাথে সাথে উপরের ছবির মত ডান পাশে চারটি সাব মেনু চলে আসবে। প্রথমটা মানে Quick Recovery তে ক্লিক করলে রিকভার শুরু হয়ে যাবে। Quick Recovery সিস্টেমে অনেক দ্রুত ফাইল স্কান ও রিকভার হয়। তবে আমরা দ্বিতীয় সবমেনু মানে Deleted Recovery অপশন টা দিয়ে কাজ করব। কারণ এটি অপেক্ষাকৃত অনেক বেশি ও পুরানো ফাইল রিকভার করতে সক্ষম। যদিও এই সিস্টেমে সময় একটু বেশি লাগে। Deleted Recovery শুরু করার পূর্বে বাকি সাবমেনু দুইটা সম্পর্কে একটু ধারনা দিয়ে দেই। তৃতীয় সাবমেনু Advanced Recovery এখান থেকে ফাইল সিস্টেম FAT অথবা NTFS সিলেক্ট করে দিন। ডিফল্ট সেটিংসে হিসেবে NTFS সিলেক্ট করা থাকে। এখন চতুর্থ ও শেষ সাবমেনু Raw Recovery থেকে ফাইল টাইপ এ ক্লিক করুন। নিচে চিত্রের মত ডায়ালগ বক্সটি দেখতে পাবেন।

 

এই ডায়ালগ বক্স থেকে আপনি কোন কোন ফরমেট এর ফাইল রিকভার করতে চান তা সিলেক্ট করে দিন। ডিফল্ট সেটিংসে অল্প কিছু প্রয়োজনীয় এবং সব সময় কম্পিউটারে ব্যবহৃত হয় এমন কিছু ফরমেট সিলেক্ট করা থাকে আপনি আপনার ইচ্ছেমত সিলেক্ট করে নিতে পারেন। চাইলে Select All অপশন ব্যবহার করে সব ধরনের ফাইল সিলেক্ট করতে পারেন। আমি মনে করি, কম্পিউটারে ব্যবহৃত দরকারি সব ধরনের ফরমেট এখানে দেয়া আছে। তবুও যদি আপনার কোন ফাইল ফরমেট সংযুক্ত করার প্রয়োজন পড়ে যেটা এখানে নেই সেজন্য ডায়ালগ বক্স থেকে Append Header File এ ক্লিক করুন। তারপরে যে ডায়ালগ বক্সটি আসবে সেখান থেকে Add এ ক্লিক করুন।

এখন উপরের ছবির মত করে আপনার দরকারি ফাইল ফরমেট এর তথ্য দিয়ে Ok ক্লিক করলেই আপনার দেয়া ফাইল ফরমেটটি সংযুক্ত হয়ে যাবে। সব সেটাপ শেষ এখন দ্বিতীয় সাবমেনু Deleted Recovery তে ক্লিক করে রিকভারি স্কান শুরু করুন তাহলে নিচের ছবির মত ডাটা স্ক্যানিং শুরু হবে।

স্ক্যান শেষে নিচের ছবির মত প্রিভিউ শো করবে। এখন আপনি যে ফাইল অথবা ফোল্ডার রিকভার করতে চান তা সিলেক্ট করে ডান পাশে নীচে থেকে Recover বাটনে ক্লিক করুন।

আমরা এখনো সফটওয়্যারটি রেজিষ্ট্রেশন করিনি তাই এখন রিকভারে ক্লিক করার সাথে সাথে একটি ডায়ালগ বক্স শো করবে আর রিকভার করতে হলে রেজিষ্ট্রেশন করার জন্য বলবে। ডায়ালগ বক্স থেকে Registration এ ক্লিক করুন। তারপরে যে ডায়ালগ বক্সটি আসবে সেখান থেকে I have the activation key সিলেক্স করে Ok ক্লিক করুন। এখন User Name আর Activation Code চাইবে। নিচের ছবি দেখে কাজ করুন।

ডাউনলোড করা জিপ ফাইল থেকে Keygen ফাইলটা ওপেন করে উপরের ছবির মত Vovan [Braga Software] এর জায়গার আপনার নিজের নাম লিখুন তারপর Generate বাটনে ক্লিক করুন। তাহলেই এক্টিভেশন কোড পেয়ে যাবেন। এখন এই নাম আর এক্টিভেশন কোড User Name এবং Activation Code এর জায়গায় কপি করে পেষ্ট করে দিন। অতঃপর Ok ক্লিক করুন। নতুন ডায়ালগ বক্সে শো করবে “Congratulations! your application has been successfully activated” এখন ডায়ালগ বক্স থেকে Ok ক্লিক করুন।

রেজিষ্ট্রেশন হয়ে গেলে আপনার কাছে এখন লোকেশন চাইবে আপনি রিকভারকৃত ভাইল অথবা ফোল্ডার কোথায় সেভ করতে চান। Brows এ ক্লিক করে আপনার পছন্দমত লোকেশন সিলেক্ট করে দিন। তারপর Ok ক্লিক করুন।

২. CD DVD Recovery: CD DVD Recovery অপশন ব্যবহার করে সিডি অথবা ডিভিডি এর সকল ধরনের Corrupted এবং Damaged ফাইল রিকভার করা যাবে। প্রথমে যে সিডি/ডিভিডি এর ফাইল রিকভার করতে চান সেই সিডি/ডিভিডি ডিস্কটি আপনার কম্পিউটারের CD/DVD Drive এ প্রবেশ করান। এখন সফটওয়্যারটি ওপেন করে Data Recovery অপশন এর নীচে CD DVD Recovery অপশনটিতে ক্লিক করুন। Select Optical Media to Recover এর নিচে আপনার সিডি/ডিভিডি ড্রাইভটি শো করবে। ড্রাইভটির উপর ক্লিক করলে ‍ডান পাশে Scan Now নামে একটা কমান্ড বাটন আসবে। Scan Now তে ক্লিক করুন তাহলেই স্কান শুরু হয়ে যাবে। তারপর স্কান শেষ হলে ১. Drive Recovery এর মত একই নিয়মে আপনার প্রয়োজনীয় ফাইল রিকভার করে নিন।

৩. Photo Recovery: Photo Recovery অপশন ব্যবহার করে সকল প্রকার ডিলেটকৃত এবং ফরমেটকৃত হার্ডডিস্ক, পেনড্রাইভ, মেমরি কার্ড ও সব ধরনের USB মেমরি থেকে যে কোন ফরমেট এর ইমেজ বা ছবি রিকভার করা যাবে। আপনি যদি পেনড্রাইভ অথবা মেমরি কার্ডের ডাটা রিকভার করতে চান তবে কাজ শুরু করার আগে আপনার মেমরিটি USB ড্রাইভে প্রবেশ করান। এখন সফটওয়্যারটি ওপেন করে Data Recovery অপশন এর নীচে Photo Recovery অপশনটিতে ক্লিক করুন। এখন যে ড্রাইভ এর ছবি রিকভার করতে চান সেই ড্রাইভটির উপর ক্লিক করুন তাহলেই ‍ডান পাশে Scan Now নামে কমান্ড বাটন চলে আসবে। Scan Now এর নীচে File Type থেকে প্রয়োজনে আপনার পছন্দমত ফাইল সিলেক্ট করে Scan Now তে ক্লিক করুন। স্কান শেষে আগের মত একই নিয়মে আপনার প্রয়োজনীয় ছবি রিকভার করে নিন।

আরেকটু কথা বলে রাখি রিকভারি সফটওয়্যার কোনটাকেই খারাপ বলা যাবে না, সবগুলোই ভাল তবে দেখা যায় কোনটা দিয়ে ফরমেটকৃত ফাইল রিকভার ভাল হয়, কোনটা দিয়ে ডিলেট করা ফাইল ভাল রিকভার হয় আবার কোনটা দিয়ে পার্টিশন রিকভার ভাল করা যায়। তাই আমি শুধু এই সফটওয়্যারটি আপনাদের ব্যবহার করতে বলব না। আসলে এই সফটওয়্যারটিতে প্রায় সব ধরনের ফিচার আছে বলেই এইটা নিয়ে আলোচনা করেছি। এবং সব রিকভারি সফটওয়্যারের ব্যবহার প্রায় একই ধরনের তাই এইটা ব্যবহার করতে পারলে অন্য যে কোন সফটওয়্যারও ব্যবহার করতে পারবেন। এবার আপনাদের রিকভারি জগতের সেরা কয়েকটি সফটওয়্যার ফুল ভার্সনসহ লিংক দিয়ে দিচ্ছি। দরকার পড়লে এইগুলো ব্যবহার করে দেখুন প্রত্যেকটা সফটওয়্যারই অনেক ভাল। সবাই সংগ্রহে রাখুন সফটওয়্যারগুলো বেশ কাজের। আশা করি এগুলো দিয়ে আপনি হতাশ হবেন না। সফটওয়্যারগুলো ডাউনলোড করে নিতে পারেন এই লিংক থেকে।

আশা করি এত বিস্তারিত পোষ্টের পরেও রিকভারি নিয়ে কেউ আর চিন্তা করবেন না আর হয়রান হবেন না। আর এর পরেও যদি কোন সমস্যা থাকে বা রিকভারি সম্পর্কিত যে কোন বিষয় জানার থাকে আমার সাথে কমেন্টে শেয়ার করুন। আমি আপনার জানার আকাঙ্খা পূর্ণ করার ও সমস্যা সমাধানের জন্য যথাসাধ্য চেষ্টা করব। সবাইকে ধন্যবাদ ধৈর্য্য ধরে পোষ্টটি পড়ার জন্য।

 লেখাটি পূর্বে প্রকাশিত হয়েছে পিসি হেল্প সেন্টার বিডি ব্লগে।

4 Responses

  1. Rasel Khondokar
    September 6, 2012
    • Rasel Khondokar
      September 7, 2012

Write a response