সাবধান!!!! প্রযুক্তি প্রতারনার নতুন ফাঁদ! আমার নিজের তিক্ত অভিজ্ঞতা! নিজে বাঁচুন, আপনার আপনজনদেরকেও বাঁচান!

আমি একটি নতুন প্রতারনার কৌশল বিষয়ে সবাইকে সচেতন করতেই টিউনটি করছি। প্রথমেই অনুরোধ বিষয়টা যতবেশি পারেন, মানুষকে জানান। এটিই আমার প্রথম টিউন। অনেক কষ্টকরে বাংলা লিখছি তাই বিশাল একটি ঘটনা ছোট করে লিখতে হচ্ছে। তবে সবার আগেই রংপুরের ব্লগার মারূফকে ধন্যবাদ জানাই তার শত প্রতিকূলতার মাঝেও আজ শততম টিউনটি করার জন্য।

প্রতারনা

প্রতারনা

বিষয়টা গত ২০ তারিখের। জরুরি প্রয়োজনে আমি ১৯ তারিখ রাতে ও.এল. এক্স, বিক্রয় ডট কম এবং এখানেই ডট কমে এ আমার মোবাইল ফোন বিক্রয়ের এ্যাড দেই। ২০ তারিখ সকাল থেকেই আমার নাম্বারে ফোন আসতে শুরু করে। একজন ক্রেতা আমাকে অনেক আগ্রহ দেখায়। সে বলে যে এই মডেলের সেট সে ইউজ করত, সেটা হারিয়ে গেছে। তার ঠিকানা বলে বগুড়া। আমি তাকে বলি আমি তো রাজশাহীতে। তখন সে কুরিয়ার বা গাড়িতে ফোনটা পাঠাতে বলে। কথা হয় টাকাটা সে আগেই পাঠাবে। তাই আমার সন্দেহের কোন অবকাশ থাকল না। আমি আমার পরিচিত একটা গাড়ির সুপারভাইজারকেই ফোন দিলাম যে তাকে যদি একটা মোবাইল দেই সেটা সে বগুড়ায় নামিয়ে দিতে পারবে কিনা? সে সম্মতি দেয় আর বলে যে ফোনটা নিবে তার নাম্বাটা দেন, তাহলে সমস্যা হবে না।আমি বললাম ঠিক আছে। আমার মোবাইল ব্যাংকিংয়ের একটা একাউন্ট আছে । আমি ক্রেতাকে সেটাতে টাকা পাঠাতে বলি কিন্তু সে বলে তার ওমুক একাউন্ট ছাড়া হবেনা ( নামটা বললামনা, তবে বুঝতে সমস্যা হবার কথা নয়; এদের ব্যাপারে আগেও এমন সমালোচনা শোনা গেছে) । যাহোক, সে ওমুক একাউন্টেই টাকা পাঠাবে। তথন আমি আমার এক বন্ধুর নাম্বার দেই যেটাতে এই একাউন্ট খোলা আছে। ( বিশেষ লক্ষণীয় যে, সে মোবাইলের দর-দাম নিয়ে বেশি কথা বলেনি। মোটামুটি আমার চাওয়া দামেই রাজি হয়ে যায় কারণ, এই সেট তার হারিয়ে গেছে এবং আমারটাই সে কিনবে। আমারও জরুরি টাকা দরকার, তাই বেশি কিছু ভাবার সময় বা সুয়োগ কোনটাই পাইনি। যাহোক, আমি যখন আমার বন্ধুর নাম্বারে টাকাটা পাঠাতে বললাম সে তখন টাকা পাঠাচ্ছে। কিছুক্ষণ পর সে বলে যে টাকা সে পাঠিয়েছে কিন্তু মেসেজ যায়নি। তারপর বলে আপনার বন্ধুর নাম্বারটাতে সবশেষ কতদিন আগে লেনদেন হইছে? বন্ধুর কাছে শুনে তাকে বলি প্রায় ১ মাস। তখন সে আমাকে জানায় যে এই একাউন্টের নতুন নিয়ম হইছে যে ১ মাস টাকা লেনদেন না হলে একাউন্ট ব্লক হয়ে যায় এবং তাদের অফিসে গিয়ে সেটা আবার চালু করে নিতে হয়; এটা নতুন নিয়ম, সাবাই জানেনা। আমার বিষয়টা একটু খটকা লাগলেও তেমন একটা পাত্তা দেইনি কারন, এই ব্যাংকিং সিস্টেমের একাউন্ট আমার নিজের না থাকায় এ বিষয়ে তেমন একটা ধারনাও ছিলনা। তখন সে আমাকে বলে যে, আপনি একটা দোকানে যান, আমি ওই নাম্বারে টাকা পাঠাচ্ছি। আমি আমার পরিচিত একটা দোকানে গিয়ে তাকে সেখানকার নাম্বারটা দিলাম। সে টাকা পাঠাল। দোকানের মূল মালিক বাহিরে খাকায় কমৃচারি বলল যে টাকার মেসেজ আসছে কিন্তু আপনি একটু বসুন, মালিক এসে ব্যালেন্স চেক করে ক্যাশ দিবে। আমি বসে থাকলাম। মালিক এসে মনে হল কয়েকবার ব্যালেন্স চেক করল। তারপর আমাকে বলল যে কে এই টাকা পাঠিয়েছে? আমি তাকে পুরো ঘটনা বললাম। সে মোবাইলে চিটারটাকে ধমক দিয়ে ফোন কেটে দিল। আমি দোকানদারের কাছে জানতে চাইলাম কোন সমস্যা কিনা? সে বলল যে এটা একটা প্রতারক চক্র, মোবাইলে মেসেজ আসছে বাট টাকা আসেনি। আমার ভাগ্য ভালো ছিল যে দোকানদার র্পুব পরিচিত। তা নাহলে হয়ত সাথে সাথেই পুলিশ ডাকত। কারণ, আমি তাৎক্ষণিকভাবে প্রামান করতে পারতাম না যে আমি ওই প্রতারক চক্রের সাথে জড়িত নই। তবে মজার বিষয়টা হল, যে মেসেজটা দোকানদারের নাম্বারে আসে সেটা। আর আসল আতঙ্কের জায়গাটাও এটাই। আমাকে চিটারটা পাঠায় ৫২১০ টাকা। এই টাকার সাথে দোকানের আগে থেকে থাকা ব্যালান্সের যোগ-বিয়োগ করে ওই মেসেজেই শো করে বর্তমান ব্যালান্স কত!!! চিন্তা করে দেখেন কত্তবড় বাটপারি!!! হাইটেক জানোয়ার আরকি। চিটারের মোবা: নং +8801951263100 পরিচিত দোকানদার বলে আমি বেঁচে গেছি, তাই ভাববেনা যে আপনিও নিশ্তিতভাবেই বেঁচে যাবেন। আপনার ভাগ্য হয়ত আমার মত ভাল নাও হতে পারে। তাই আসুন চিটারদের এই নতুন কৌশলটা সবার সাথে শেয়ার করি আর আমাদের পরিচিত জনদের বিপদ থেকে রক্ষা করি। বি.দ্র: আমি দোকানদারের কাছে কৃতঞ্। তারপরেও একটা কথা না বলে পারছিনা.. সেই সময়ে দোকানদারের ভাবখানা ছিল যেন সে আমাকে করুণা করছে!!!যদিও মুখে কিছু বলেনি।( তাঁর জায়গায় আমি হলেও নিশ্চিত আমিও তাই করতাম, তবুও নিজের খারাপ লাগাটা শেয়ার করতেই কথাটা বললাম। কারণ, একেবারেই বিনাদোষে আমি ওই বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়ি।) সবশেষে আবারো অনুরোধ..দয়াকরে বিষয়টা সবাইকে শেয়ার করুন। কারন, আমরা এই চিটারদের থামাতে পারবনা, তারা একটার পর একটা কৌশল বের করেই যাবে। এদের থামানোটা যাদের কাজ, তাদের উপর আবার দোকানদার সাহেবের আস্থা নাই ( আমার নিজেরও যে আছে, তা নয়। তাই বিষয়টা আর বেশিদূর এগিয়ে নিতে পারিনি)। কিন্তু সবাইকেতো সর্তক করতে পারব ; যেন অন্তত্য এই কৌশলে তারা প্রতারণার শিকার না হয়। সবাইকে ধন্যবাদ সময় নিয়ে পড়ার জন্য।

মন্তব্যগুলি

মন্তব্যগুলি

1 Star2 Stars3 Stars4 Stars5 Stars (2 votes, average: 3.00 out of 5)
Loading...