শহরের জীবনে সকাল থেকেই বৃষ্টির স্পর্শ

শহরের জীবনে সকাল থেকেই বৃষ্টির স্পর্শ আজ শ্রাবনের শেষ দিন। হিসাবের খাতায় বর্ষার বিদায়। শেষ দিনে দাপট দেখাচ্ছে বৃষ্টি। রাজধানী ঢাকা খুব ভোরেই চলে যায় বৃষ্টির দখলে। সপ্তাহান্তে তিন দিনের ছুটিতে যাবে অনেকেই। সপ্তাহের শেষ কর্ম দিবসটিতে তাই গুরুত্বপূর্ণ কিছু কাজ সেরে নেওয়ার তাড়া। কিন্ত সকাল বেলাতেই বৃষ্টির বাধা।

শ্রাবনে বৃষ্টিতে ঝড়বেই। কিন্তু বৃহস্পতিবারের বৃষ্টি যেনো একটু বেশিই। সেই যে সকালে শুরু হয়েছে এরপর একটানা ঝরঝর ঝরছেই। ১০টা নাগাদ রাজধানীর অনেক সড়কই পানির নিচে। কাকভেজা মানুষগুলো কোথাও মাথার ওপর সামান্য আচ্ছাদনের খোঁজে। অনেকেই ছাতা মাথায়ও ভিজছে। কেউ কেউ আবার ভিজে যাওয়াই নিয়তি মেনে নেমে পড়েছে খালি মাথায়। দাপুটে বৃষ্টিকে সামান্য পাত্তা না দিয়ে কেউ হচ্ছেন আনন্দসিক্ত।

‘শ্রাবণ মেঘের আধেক দুয়ার ওই খোলা/আড়াল থেকে দেয় দেখা কোন পথ ভোলা…’ ভোরের আলো দেখে যারা বের হয়েছেন ঘর ছেড়ে, শ্রাবণের শেষ দিন তাদের বোধহয় বরণ করেছে রবীন্দ্রনাথের গানটিও গুনগুনিয়ে।

কবি ‘ওই শ্রাবণের বুকের ভিতর আগুন আছে…’ শোনালেও সারা শ্রাবণ মাসজুড়ে প্রকৃতির সে আগুনরূপ আমাদের কাছে ছিল অনেকটাই অধরা। তীব্র তাপপ্রবাহে শুধু নগরজীবন নয়, গ্রামের সবুজ ঘেরা মানুষও যেন অতিষ্ঠ ছিলেন।

আষাঢ়-শ্রাবণ বর্ষাকাল। চিরায়ত এই ধারাটা যেন বদলে যেতে বসেছে প্রকৃতির খেয়ালে। শ্রাবণে বিভিন্ন সময় হালকা বর্ষার আনাগোনা থাকলেও ‘অঝোর শ্রাবণ’ ছিল অনেকটাই অদেখা।

আজ শ্রাবণের শেষ দিন। দুয়ারে কড়া নাড়ছে শুভ্র শরৎ। সে আভাসও দিয়ে চলেছিল সাদা মেঘের ভেলা কয়েকদিন ধরে। কিন্তু শ্রাবণের যেন তাতে সত্যি গায়ে জ্বালা ধরেছিল। তাই শেষ বেলায় যেন বুঝিয়ে দিতে এসেছে, আমি এখনো ফুরিয়ে যাইনি, আমার এখনো আছে ডমরু মেঘ, বজ্র-মাণিক।

শুধু ঢাকা কেনো আবহাওয়া দফতরের ওয়েবসাইট খুলে দেখা গেলো দেশের সবকটি বিভাগেই শাওনের শেষ দিনে বৃষ্টি ঝড়ছে অঝোরে। ঢাকায় যেমন একের পর এক শোনা যাচ্ছে ডমরু মেঘের গর্জন, দেখা যাচ্ছে বিদ্যুতের আলোর ঝলকানি তেমনটি চলছে সারা দেশেই। দিনের অর্ধেকেরও বেশি সময় বৃষ্টিবানে বিঁধবে দেশ। দিনে ২০ মিলিমিটার পর্যন্ত বৃষ্টিপাত হতে পারে বলে আবহাওয়ার পূর্বাভাস জানিয়েছে। সারাদিনে বৃষ্টি ঝড়বে টানা ৭ ঘণ্টা। ওদিকে রাতেও ৬ ঘণ্টা বৃষ্টি হবে। যার পরিমান দাঁড়াবে ১৮ মিলিমিটার।

সোর্সঃ ইন্টারনেট

মন্তব্যগুলি

মন্তব্যগুলি

1 Star2 Stars3 Stars4 Stars5 Stars (No Ratings Yet)
Loading...