যাদের Android আছে শুধু তাদের জন্য Ridmik Keyboard(বাংলা কি-বোর্ড)

 

অ্যান্ড্রয়েড ফোনে বাংলা লেখা লিখতে চাই আমরা অনেকেই। অনলাইন এ বিভিন্ন সাইট, ফেসবুক, ব্লগ, ছবির ক্যাপশন অথবা চ্যাট, সব জায়গায় বাংলা ভাষা ব্যবহার করা হচ্ছে।অ্যান্ড্রয়েড ফোনেও এই বাংলা ভাষার ব্যবহার বিদ্যমান আছে। প্রায় বেশিরভাগ অ্যান্ড্রয়েড ফোনেই বাংলার জন্য ফন্ট থাকে। অ্যান্ড্রয়েড ফোনে বাংলা লেখা অনেক পরিষ্কার দেখা গেলেও কোনো কিবোর্ড লেআউট জুড়ে দেয়া থাকে না।

firojbd firojbd2 firojbd-37

রিদ্মিক কিবোর্ড সম্পর্কে কিছু কথা নিচে দেয়া হলঃ রিদ্মিক কিবোর্ড এর সাইজ একটু বড় প্রায় ৫ মেগাবাইট,এতে আছে কিবোর্ড লে-আউট ফোনেটিক ও ইউনিজয়, বিভিন্ন ডিজাইনের কিবোর্ড। এই সফটওয়্যারটি প্লে স্টোর থেকে বিনামূল্যেই ডাউনলোড করা যায়।

আপনি ইচ্ছা করলে কিউআর কোড স্ক্যান করে ডিভাইসে রিদ্মিক কিবোর্ড ডাউনলোড করে নিতে পারেন। এটি ইন্সটল হলে ডিভাইসের সেটিংস এ যেয়ে ল্যংগুয়েজ এ্যান্ড কিবোর্ড সেটিং এ যেয়ে রিদ্মিক কিবোর্ডের পাশে চেকবক্সটি টিক দিতে হবে। তাহলেই ডিভাইসে রিদ্মিক কিবোর্ড অ্যাক্টিভেট হয়ে যাবে। কোনো টেক্সট ফিল্ডে লিখতে হলে রিদ্মিক কিবোর্ড ব্যবহারের জন্য আরেকটি পর্যায় আছে। তাই ডিভাইসের এসএমএস অপশনে যেয়ে নতুন মেসেজ লেখার স্ক্রিন খুলতে হবে বা ফেসবুকে স্ট্যাটাস লেখার পাতাও খোলা যেতে পারে। টেক্সট বক্সে খালি জায়গায় কিছু সময় প্রেস করলেই ইনপুট মেথডের মেনুটি পাওয়া যাবে। এতে ক্লিক করলে ইন্টারন্যাশনাল কিবোর্ডের নিচেই রিদ্মিক কিবোর্ড দেখা যাবে যা সিলেক্ট করতে হবে।টেক্সট ফিল্ডে লিখলেই পুরনো কিবোর্ডের বদলে রিদ্মিক কিবোর্ডের সাক্ষাৎ পাওয়া যাবে! কিবোর্ডটি ইংরেজিতে থাকবে। তাই কিবোর্ড লেআউট পরিবর্তন করতে হবে। রিদ্মিক কিবোর্ডে আছে তিন ধরনের কিবোর্ড লেআউটঃ ডিফল্ট ইংরেজি, ফোনেটিক বাংলা ও ইউনিজয়। পরিবর্তনের জন্য স্পেস বারে প্রেস করে ডানদিকে বা বামদিকে সোয়াইপ করতে হবে। তবেই পছন্দের কিবোর্ড লেআউটটি বেছে নেওয়া যাবে।এবার খুব সহজেই বাংলায় লিখা যাবে। রিদ্মিক কিবোর্ড নতুন একটি সফটওয়্যার হওয়ায় এখনও এতে ছোটখাটো সমস্যা ও বাগ থাকা স্বাভাবিক।

Capture

 

No Responses

Write a response