মর্গে বেঁচে উঠেই চা চাইলেন ‘মৃত’ নারী…

52262_morপোল্যান্ডের এক চিকিৎসক ৯১ বছর বয়সী জ্যানিনা নামে এক নারীকে মৃত ঘোষণা করেছিলেন। এর কয়েক ঘণ্টা পর মর্গে বেঁচে উঠলেন তিনি। এ ঘটনায় রীতিমতো হতভম্ব বনে গেছেন চিকিৎসক ওয়াইসলাওয়া সি.। সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, জীবিত থাকার কোন লক্ষণ না পেয়ে নিশ্চিত হয়েই তিনি তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এ খবর দিয়েছে বার্তা সংস্থা এপি। গত ৬ই নভেম্বর সকালে একটি বাড়ি থেকে ফোন পেয়ে সেখানে যান ওয়াইসলাওয়া। তিনি জানান, বাহুতে নাড়ি ও ঘাড়ের ধমনী পরীক্ষা, হার্টবিট শোনার চেষ্টা, শ্বাস-প্রশ্বাসের শব্দ, আলোতে চোখের মণির প্রতিক্রিয়া সবটাই করেছেন তিনি। কিন্তু, বেঁচে থাকার কোন ধরনের লক্ষণই খুঁজে পাননি তিনি। ওই চিকিৎসক বলছিলেন, সন্দেহ থাকলে, আমি অ্যাম্বুলেন্স ডাকতাম, ইলেক্ট্রোকার্ডিওগ্রাম করাতাম। কিন্তু, আমি নিশ্চিত ছিলাম রোগী মারা গেছেন। মৃত ঘোষণার ২ ঘণ্টা পর মর্গে নিয়ে যাওয়া হয় ৯১ বছর বয়সী জ্যানিনাকে। মধ্যরাতের সামান্য আগে মর্গের এক কর্মী সেখানে আরেকটি লাশ রাখার জন্য গেলে একটি ব্যাগের মধ্যে নড়াচড়া খেয়াল করেন। সঙ্গে সঙ্গে ব্যাগটি খুলে দেন তিনি। ‘মৃত’ জ্যানিনা ঠা-া লাগার অভিযোগ আনেন এবং গরম চা পান করতে চান। ভীষণ বিস্মিত হন ওই কর্র্মী। এরপর জ্যানিনাকে বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়। এখন তিনি সুস্থ আছেন। ওই চিকিৎসক জীবিত বা মৃতের নির্ণয়টা নির্ভুলভাবে করতে ব্যর্থ হয়েছে কিনা, তা যাচাইয়ে তদন্ত পরিচালিত হচ্ছে। এরই মধ্যে ডেথ সার্টিফিকেটও ইস্যু করা হয়েছে। সেটি বাতিলের জন্যও ওই পরিবারের পক্ষ থেকে আঞ্চলিক আদালতকে অনুরোধ জানানো হয়েছে।

Posted by Ab Emon

সোর্সঃ ইন্টারনেট

No Responses

Write a response