ভালবাসার রঙ্গমঞ্চঃ মেয়েরা জীবনসঙ্গীর মধ্যে যে ৬ টি গুণ খুঁজে ?

এই পোস্ট 2 of 144 পর্বে অন্তর্ভুক্ত ভালবাসার রঙ্গমঞ্চ

images (2)

‘যা পেয়েছি আমি তা চাই না। যা চেয়েছি কেন তা পাই না।’ কিশোর কুমারের এ বিখ্যাত গানের প্রথম দুটি লাইন মিলে যায় অনেকের সঙ্গে। বিশেষ করে মেয়েদের জীবনে। কারণ জীবনের অনেকটা সময় নিজের জীবনসঙ্গীর পছন্দের রূপ কল্পনা করেই কাটিয়ে দেয় মেয়েরা। ছেলেরা বুঝতেও পারেন না জীবনসঙ্গিনী তার মধ্যে কোন গুণটি খুঁজে।

আত্মবিশ্বাসঃ আত্মবিশ্বাস শুধু একটি শব্দ নয়, একটি শক্তি যা আমাদের জীবনের কঠিন পরিস্থিতিও সহজভাবে মোকাবিলা করতে সাহায্য করে। আত্মবিশ্বাসী পুরুষ নিজের প্রতিটি কাজ সম্পর্কে ধারণা রাখতে পারেন, তারা নিজের আত্মবিশ্বাসের মাধ্যমে নিজের অবস্থান উন্নত করার ক্ষমতা রাখেন। তাই আত্মবিশ্বাস ও ব্যক্তিত্বসম্পন্ন পুরুষ নারীদের কাছে সব সময়েই আকর্ষণীয়।

ব্যক্তিত্বঃ আন্তরিক থাকুন। স্ত্রীর প্রতি মুগ্ধতা প্রকাশ করুন। দুর্বলতা থাকলে তা স্বীকার করে নিন। তবে আপনার গোপন কথা বলবেন না। স্ত্রী যদি কোনো অর্জনের কথা বলে তাহলে সেটার প্রশংসা করুন। এগুলোই ভালো ব্যক্তিত্বের প্রকাশ। আর একজন নারী সব সময়ই চায় তার স্বামী ব্যক্তিত্ববান হোক। ব্যক্তিত্ববান মানুষ সবার কাছে শ্রদ্ধার পাত্র।

সহযোগী মনোভাবঃ শুধুমাত্র একপক্ষের ছাড় দেয়া কখনোই একটি সম্পর্ককে বেশিদিন টিকিয়ে রাখতে পারে না। মনে রাখুন, নিজের পরিবার ছেড়ে আসার কষ্ট এবং সেই সঙ্গে নতুন পরিবেশকে মানিয়ে নেয়ার চেষ্টা— এই দুই-ই স্ত্রীর জন্য বেশ কঠিন। এ সময়ে স্ত্রীর জন্য স্বামীর আন্তরিক চেষ্টা এবং ভালোবাসার কোনো বিকল্প নেই। তাই প্রত্যেকটি নারীই চায় তার জীবনসঙ্গী অনেক সহযোগী মনোভাবের হোক।

সঠিক বিচারকঃ একটি মেয়ে তার জীবনসঙ্গীর কাছে সমর্থনের আশা করেন সব চাইতে বেশি। যে পুরুষ সঠিক সময়ে ন্যায়-অন্যায় বিচার করে নিজের সঙ্গিনীর পক্ষ নিতে দ্বিধাবোধ করেন না তারাই নারীদের কাছে একজন সঠিক জীবনসঙ্গী হিসেবে বিবেচিত হন।

নিরাপত্তার নিশ্চয়তাঃ নিরাপত্তা হল সুরক্ষিত থাকার অবস্থা। এই সুরক্ষা হতে পারে যে কোনো ধরনের শারীরিক, মানসিক, সামাজিক, আর্থিক, রাজনৈতিক, আবেগকেন্দ্রিক, পেশাগত বা শিক্ষাগত ব্যর্থতা, পরাজয়, ক্ষতি, ভীতি, দুর্ঘটনা ইত্যাদি থেকে। তাই সব সমস্যা এবং বিপদ-আপদের হাত থেকে দূরে থাকতে একজন নারী তার জীবনসঙ্গীর কাছেই প্রথমে যান। তিনি আশা করেন তার জীবনসঙ্গী তাকে সেই সব সমস্যা থেকে মুক্ত রাখার ক্ষমতা রাখে।

মতামতের মূল্যায়নঃ আপনার স্ত্রী অবশ্যই চাইবেন আপনি তার পছন্দ-অপছন্দের খোঁজ খবর রাখুন এবং তার মতামতের মূল্য দেবেন। এই জিনিসটি প্রত্যেক মানুষই তার পছন্দের মানুষের কাছে চেয়ে থাকে। নারীরা বেশিভাগ সময়েই নিজের জীবনসঙ্গীর মতামত মেনে নিয়ে থাকেন। তবে সম্পর্কে ভালো-মন্দ বিচার করার ক্ষমতা দু’জনের মধ্যেই থাকা উচিৎ।

 

তথ্যসূত্রঃ ইন্টারনেট

1