বিশ্বের সেরা ২০টি স্মার্টফোন দেখে নিন

image_104169.1

বাজারে বহু মডেলের স্মার্টফোন থাকলেও সেরা স্মার্টফোন ঠিক কোনটি তা নিয়ে রয়েছে ব্যাপক বিভ্রান্তি। প্রত্যেকটি ফোনেরই রয়েছে ভিন্ন ভিন্ন ডিজাইন, সফটওয়্যার ও হার্ডওয়্যারের সমন্বয়। এ ছাড়া দামটিও এক্ষেত্রে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কোনো ফোনের ফিচার যথেষ্ট ভালো হলেও দামের তুলনায় তা বেশি নয়। আবার কোনো ফোন দামে কম হলেও ফিচার তার চেয়ে বেশি খারাপ। এসব দিক বিবেচনায় ২০টি সেরা স্মার্টফোনের একটি তালিকা বানিয়েছে বিজনেস ইনসাইডার।
২০. এলজি জি৩ (শীঘ্রই বাজারে আসবে)
এলজির সর্বাধুনিক পণ্য জি৩ বাজারে আসার অপেক্ষায় আছে। এর সাড়ে পাঁচ ইঞ্চি স্ক্রিন হতে যাচ্ছে স্মার্টফোনগুলোর মধ্যে সেরা। এ ছাড়া এর ক্যামেরাটি একটি লেজার বিম ফেলে ফোকাস নির্ণয় করবে। ফলে ছবি হবে অসাধারণ।

image_104169_0.19-20

 

১৯. ব্ল্যাকবেরি কিউ১০
আপনি যদি ফিজিক্যাল কিবোর্ড পছন্দ করেন, তাহলে এটাই সেরা স্মার্টফোন। তবে এতে অ্যাপের সংখ্যা একটু কম।
১৮. মটোরোলা মটো ই
যদি কাজ চালানোর মতো একটি স্মার্টফোন দরকার হয়, তাহলে এটি নিতে পারেন। এর স্ক্রিন সুপার শার্প নয়, ফোরজি নেটওয়ার্কও নেই। কিন্তু এর মূল্যও বেশ কম।
১৭. এলজি জি ফ্লেক্স
এলজির প্রথম বাঁকানো পর্দার স্মার্টফোন এটি। এর ৬ ইঞ্চি স্ক্রিন ও নিজে থেকে দাগ ঠিক করার ক্ষমতা রয়েছে। তবে এর স্ক্রিনের রেজুলেশন কম। আর এলজির ইন্টারফেসটিও আকর্ষণীয় নয় বলে অভিমত ব্যবহারকারীদের।
১৬. এলজি জি২
বর্তমানে এলজির ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোন এটি। এর পাঁচ ইঞ্চি স্ক্রিন বেশ উন্নত।

image_104169_1.15

 

১৫. এইচটিসি ওয়ান ম্যাক্স
এইচটিসির প্রথম ফ্যাবলেট (স্মার্টফোন ও ট্যাবলেটের সংমিশ্রণ)। এর ৫.৯ ইঞ্চি স্ক্রিন রয়েছে। এ ছাড়া ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর এর আবেদন অনেকখানি বাড়িয়ে দিয়েছে।
১৪. স্যামসাং গ্যালাক্সি এস৪
স্যামসাংয়ের গত বছরের অন্যতম সেরা পণ্য এটি। এ বছরেও এ পণ্যটি যথেষ্ট সমাদৃত হয়েছে।
১৩. আইফোন ৫সি
আইফোন ৫সি অ্যাপলের অন্যতম পণ্য। আইফোন ৫এস-এর কমদামি মডেল এটি। আর এটি বিভিন্ন রঙে পাওয়া যাচ্ছে। এসব রঙের মধ্যে রয়েছে নিল, গোলাপি, সবুজ, হলুদ ও সাদা।
১২. এইচটিসি ওয়ান
এটি গত বছর এইচটিসির প্রধান পণ্য ছিল। এ বছরেও এর আবেদন ফুরিয়ে যায়নি। এর সুন্দর ক্যামেরা ও ৪.৭ ইঞ্চি স্ক্রিন রয়েছে।
১১. নোকিয়া লুমিয়া আইকন
আপনি যদি নোকিয়ার ভক্ত হন, তাহলে এটি হতে পারে আপনার একটি অন্যতম পছন্দ। উইন্ডোজ ফোন অপারেটিং সিস্টেম থাকার ফলে এতে কিছু সুবিধাও রয়েছে।
১০. নোকিয়া লুমিয়া ১০২০
নোকিয়া লুমিয়া ১০২০ হলো অন্যতম সেরা উইন্ডোজ ফোন। এর ক্যামেরাও উন্নত।
৯. নোকিয়া লুমিয়া ১৫২০
নোকিয়ার প্রথম উইন্ডোজ ফোন ফ্যাবলেট হলো নোকিয়া লুমিয়া ১৫২০। এতে ৬ ইঞ্চি আকারের স্ক্রিন রয়েছে।
৮. স্যামসাং গ্যালাক্সি নোট ৩
গ্যালাক্সি ফ্যাবলেট বাজারে এনে দুই বছর আগেই ফ্যাবলেট ধারার প্রচলন করে স্যামসাং। বর্তমানে তার তৃতীয় মাত্রা চলছে।
এর স্ক্রিন ৫.৭ ইঞ্চি। তবে আগের মডেলের তুলনায় এবারেরটি অনেক হালকা ও পাতলা।
৭. মটোরোলা মটো এক্স
বাজারের অন্যতম সেরা অ্যান্ড্রয়েড ফোন এটি। মটোরোলা এতে কিছু নতুন ফিচারও যোগ করেছে। আর এর অ্যান্ড্রয়েড ভার্সনটিও আকর্ষণীয়।

image_104169_2.6

 

৬. গুগল নেক্সাস ৫
এলজির সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে নির্মিত গুগলের এ ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোনটি দেখতে অনেকটা অন্যান্য নেক্সাস ডিভাইসের মতোই। এর অ্যান্ড্রয়েড ভার্সনটি একেবারে গুগলের নিজস্ব। ফলে এতে কোনো পরিবর্তন করা হয়নি। এর সফটওয়্যার আপডেটও অনেক দ্রুত হয়। আর এর দামও বেশ কম।
৫. স্যামসাং গ্যালাক্সি এস৫
স্যামসাংয়ের সেরা স্মার্টফোন এটি। এটি গত বছরের গ্যালাক্সি এস৪-এর চেয়ে অনেক উন্নত। এতে বাদ দেওয়া হয়েছে আগের ভার্সনের বেশকিছু অপ্রয়োজনীয় ফিচার। তার বদলে যোগ করা হয়েছে বহু কার্যকর ফিচার। এর ৫.১ ইঞ্চি স্ক্রিন স্মার্টফোনগুলোর মধ্যে সেরা। এছাড়া ক্যামেরাটাও অসাধারণ।
৪. ওয়ানপ্লাস ওয়ান
চাইনিজ নির্মাতার মোবাইল ফোন ‘ওয়ানপ্লাস ওয়ান’ অন্যতম সেরা স্মার্টফোন হিসেবে নির্বাচিত হয়েছে। এর প্রসেসর, স্ক্রিন ও অন্যান্য ফিচারের কল্যাণেই এ স্থান পেয়েছে ফোনটি। ৫.৫ ইঞ্চি স্ক্রিনের স্মার্টফোনটির রয়েছে অসাধারণ সফটওয়্যারও। তবে এর সরবরাহ এখনও সীমিত আর মূল্যটাও কম।

 

image_104169_3.34

 

৩. এইচটিসি ওয়ান (এম৮)
এইচটিসির সর্বাধুনিক পণ্য এইচটিসি ওয়ান (এম৮)। এর ডিজাইন যেমন অসাধারণ তেমন ধাতব বডিও উচ্চমাণের। এছাড়া এর পেছনে একটি বাড়তি ক্যামেরাও রয়েছে।
২. এইচটিসি ওয়ান (এম৮) গুগল এডিশন
এইচটিসির সঙ্গে যৌথভাবে গুগল এ স্মার্টফোনটি তৈরি করেছে। আর এর অপারেটিং সিস্টেমটি সম্পূর্ণ পরিষ্কার একটি ভার্সন। যার অর্থ এতে বাড়তি কোনোকিছু যুক্ত করা হয়নি।

image_104169_4.2

 

১. আইফোন ৫এস
বহু মানুষের বিচারেই বাজারের সেরা স্মার্টফোন আইফোন ৫এস। এর ডিজাইন যেমন অসাধারণ, তেমন ফিচারগুলোও ব্যবহারউপযোগী। এটি গত বছরের ভার্সন আইফোন ৫-এর মতোই। কিন্তু এর ক্যামেরা ও ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর একে দিয়েছে স্বতন্ত্র রূপ। ফোনটি আনলক করার জন্য পাসওয়ার্ডের বদলে ব্যবহার করা যায় আঙ্গুলের ছাপ।

সোর্সঃ ইন্টারনেট

ইচ্ছে নতুনের যুগে পরাতন কিছু করার । তাই আমি আমার কাজ করে যাচ্ছি ।

মন্তব্যগুলি

মন্তব্যগুলি

1 Star2 Stars3 Stars4 Stars5 Stars (No Ratings Yet)
Loading...