বাংলা সিনেমার প্রথম চুম্বন দৃশ্য!

বাংলা সিনেমার প্রথম চুম্বন দৃশ্য!বাংলা সিনেমার দর্শক মাত্রই স্বীকার করবেন যে রাজ্জাক-ববিতা জুটিকে বলা চলে এ যাবত ঢাকাই ছবির অন্যতম সেরা রোমান্টিক জুটি। এই জুটির সবচেয়ে আলোচিত ও সমাদৃত সিনেমা ‘অনন্ত প্রেম’, যা ছিল রাজ্জাক পরিচালিত প্রথম ছবি। প্রযোজকও ছিলেন তিনি। রাজলক্ষী প্রোডাকশনসের ব্যানারে নির্মিত সিনেমাটি ছিল সুপার ডুপার হিট। এবং হ্যাঁ, ৩৭ বছর আগে মুক্তি পাওয়া সিনেমাটির জন্যই চিত্রায়িত হয়েছিল বাংলাদেশি চলচ্চিত্রের প্রথম চুম্বন দৃশ্যটি! শুনে অবাক লাগছে? কিন্তু সেটাই সত্য।

‘অনন্ত প্রেম’ মুক্তি পায় ১৯৭৭ সালের মার্চ মাসে। সেই সময়ের তুলনায় ছবিটি ছিল দারুণ সাহসী। ছবির শেষ দৃশ্যে নায়ক নায়িকার গভীর চুম্বনের দৃশ্য ছিল যা সেই সময়ে রীতিমতো হইচই ফেলে দিয়েছিল। কাহিনীটা এমন ছিল যে পুলিশের গুলিতে মৃত্যু হয় নায়ক নায়িকার। মৃত্যুর সময় পরস্পরকে চুম্বন করেন তারা। শেষ পর্যন্ত ঝর্ণার তীরে পড়ে থাকে প্রেমিক প্রেমিকার আলিঙ্গনাবদ্ধ প্রাণহীন দেহ।

শেষ দৃশ্যটি ছাড়াও ববিতা-রাজ্জাকের প্রেমের বেশ কিছু সাহসী দৃশ্য ছিল এতে। অভিনয় এতটাই প্রাণবন্ত ও স্বাভাবিক হয়েছিল যে দুজনের মধ্যে বাস্তবজীবনেও প্রেম চলছে এমন গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়ে ছবি মুক্তির পর। এ ছবির জন্য ববিতা ৫০ হাজার টাকা পারিশ্রমিক তো নিয়েছিলেনই আরও অতিরিক্ত ২০ হাজার টাকা নিয়েছিলেন চুম্বন দৃশ্যের জন্য, যা সে সময় ছিল অকল্পনীয় সাহসিকতা।

রাজ্জাক এক স্মৃতিচারণে বলেছিলেন, ববিতা নাকি দৃশ্যটি করার পর খুব নার্ভাস হয়ে পড়েন। তিনি তখনও অবিবাহিত ছিলেন। ভয় পেয়েছিলেন এমন একটি দৃশ্যে অভিনয় করার পর তার হয়তো আর বিয়ে হবে না। পরবর্তীতে তিনি অবশ্য দৃশ্যটির শিল্পিত রূপ দেখে মুগ্ধ হন। ওই সময়ের বিখ্যাত চলচ্চিত্র বিষয়ক পত্রিকা ‘চিত্রালী’তে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়, সেন্সর বোর্ডও দৃশ্যটিকে ছাড়পত্র দিয়েছিল। ওই প্রতিবেদনে রাজ্জাক বলেছিলেন, “মানুষের স্বাভাবিক আচার আচরণকে স্বাভাবিকভাবে আসতে না দিলে ছবিতে অশ্লীলতা এবং বিকৃতি আসতে বাধ্য। ঢাকার অসংখ্য ছবিতে এর প্রমাণ রয়েছে। আমার ছবিতে একটিও অশ্লীল দৃশ্য নেই। আমি দৃঢ় বিশ্বাসের সঙ্গে বলতে পারি– আমার ছবির চুম্বন দৃশ্যটাকে কারো কাছেই অশ্লীল মনে হবে না।”

শেষমুহূর্তে অবশ্য দৃশ্যটাকে বাদ দেওয়া হয়। সেন্সর বোর্ডের সবুজ সংকেত থাকা সত্ত্বেও ঠিক কি কারণে নির্মাতারা দৃশ্যটিকে রাখেননি- সেটি এখনও স্পষ্ট নয়। দৃশ্যটি রেখে দেওয়া হলে, সেটিই হতো বাংলা সিনেমার প্রথম গভীর চুম্বন দৃশ্য।

No Responses

Write a response