বাংলাদেশ বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা

এই পোস্ট 44 of 44 পর্বে অন্তর্ভুক্ত ব্লগার টিউটোরিয়াল

বাংলাদেশের বনাম দক্ষিণ আফ্রিকার ২০১৭ সালের মধ্যেকার ১ম ওয়ানডে ম্যাচ বিনা উইকেটে জয় লাভ করেছে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ দক্ষিণ আফ্রিকা । হাতে দশটি উইকেটে অক্ষুণ্ণ রেখে অপরাজিত থেকে ওপেন নিং জুটিতে দক্ষিণ আফ্রিকা জয় লাভ করে। বাংলাদেশের ক্রিকেট প্রেমী সকলের আশা জাগিয়ে তুলছে যে অন্তত ওয়ানডেতে ফিরবে বাংলাদেশের সীমিত ওভারের ক্রিকেট এখন এতটাই বদলে গেছে যে,কোনো দল যত বেশি রানই করুক না কেন সেটা টপকে যাওয়ার সামর্থ্য রাখে প্রতিপক্ষ। তিনশর অধিক রান করাটা এখন মামুলি বিষয়ে দাঁড়িয়ে গেছে। এমনকি কোনো উইকেট না হারিয়ে দুইশ-আড়াইশ রান তাড়া করাটাও এখন নৈমিত্তিক হয়ে দাঁড়িয়েছে। বিষয়টি আরেকবার প্রমাণ করল দক্ষিণ আফ্রিকা। বাংলাদেশের দেওয়া ২৭৮ রান তাড়া করতে দলটি একটিও উইকেট হারায়নি। ওয়ানডে ইতিহাসে এত বেশি রান করে ১০ উইকেটে হারের নজির আর একটিও নেই। সপ্তম দল হিসেবে ২০০ রানের বেশি করে ১০ উইকেটে হারল বাংলাদেশ। ১৯৮৩ সালে জিম্বাবুয়ের দেওয়া ১৭২ রান বিনা উইকেটেই তুলে নিয়েছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। সেবার বিষয়টি নিয়ে বেশ আলোচনা হয়েছিল। ১৯৭৫ সালে ওয়ানডে ক্রিকেট শুরুর পর এত বেশি রান তাড়া করে জয়ের রেকর্ড আর একটিও ছিল না। এরপর থেকেই গ্রডন গ্রিনিজ ও ডেসমন্স হেইন্সকে বিশ্বের সেরা উদ্বোধনী জুটি মনে করা হয়। চার বছর পর নিজেদের রেকর্ড ভাঙে ওয়েস্ট ইন্ডিজই। পাকিস্তানের দেওয়া ১৯২ রান অবলীলায় তাড়া করেন হেইন্স ও বাচ্চুস। ওয়ানডেতে ২০০ রানের বেশি তাড়া করে জয়ের রেকর্ডটাও ক্যারিবীয়দের। ১৯৯২ সালের বিশ্বকাপে পাকিস্তানের দেওয়া ২২১ রান কোনো উইকেট না হারিয়েই তুলে নেয় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। এবারও ঘটনার সাক্ষী হেইন্স। সেবার অবশ্য ব্রায়ান লারা আহত হয়ে মাঠ থেকে চলে যান।
সময়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে ১০ উইকেটে জয়ের ঘটনাও বাড়তে থাকে। সেই সঙ্গে রানের ব্যবধানটাও বাড়ে। ২০১৬ সালে শ্রীলঙ্কার দেওয়া ২৫৫ রান কোনো উইকেট না হারিয়েই তুলে নেন জেসন রয় ও অ্যালেক্স হেলস। গতকাল পর্যন্ত ওটিই বিশ্ব রেকর্ড হয়ে ছিল। তবে আজ রেকর্ডটা ভেঙে দিলেন হাশিম আমলা ও কুইন্টন ডি কক। ২৮২ রান করে তারা সরিয়ে দিলেন হেলস ও রয়কে। সঙ্গে বা্ংলাদেশকে ১১তম বার ১০ উইকেটে হারের লজ্জা দিলেন এই দুই প্রোটিয়া ব্যাটসম্যান। ক্রিকেট বিশ্বে এত বেশিবার ১০ উইকেটে হারের রেকর্ড নেই আর কোনো দেশের। জিম্বাবুয়ে এমন লজ্জা পেয়েছে সাতবার। শ্রীলঙ্কা পাঁচ, ভারত, ইংল্যান্ড ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ চারবার করে এমন লজ্জা পেয়েছে। পাকিস্তান ও নিউজিল্যান্ড তিনবার করে ১০ উইকেটে হারের স্বাদ গ্রহণ করেছে। অস্ট্রেলিয়া মাত্র একবার ১০ উইকেটে হেরেছে।
ক্রিকেট প্রেমী সকল দর্শক শ্রোতাদের আশা খুব শীঘ্রই ফেরবে বাংলাদেশ ।

2

No Responses

Write a response