‘বাংলাওয়াশ’ দেখতে চান হোয়াটমোরও

bangla_wash_swadeshnews24_bd_team২০০৬ সালে প্রথমবার জিম্বাবুয়েকে পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে হোয়াইটওয়াশ করে বাংলাদেশ। সেবার বাংলাদেশ দলের দায়িত্বে ছিলেন কোচ ডেভ হোয়াটমোর। দীর্ঘ বিরতিতে চলতি সিরিজে ফের জিম্বাবুয়েকে হোয়াইটওয়াশের হুমকিতে রেখেছে বাংলাদেশ। লঙ্কান বংশোদ্ভূত অসি কোচ ডেভ হোয়াটমোর বাংলাদেশ দলের দায়িত্ব ছেড়েছেন ৭ বছর আগেই। তবে বাংলাদেশ দলের এবারের সাফল্যের মুহূর্তটা সামনে থেকেই দেখছেন হোয়াটমোর। চলতি সিরিজে বিশেষজ্ঞ ধারাভাষ্যকার হয়ে বাংলাদেশ সফরে রয়েছেন তিনি। বাংলাদেশ দলের সাবেক কোচকে গতকাল সংবর্ধনা দিলো বাংলাদেশ ক্রিকেট সাপোর্টার্স এসোসিয়েশন (বিসিএসএ)। আর সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে ডেভ হোয়াটমোর শুরুতেই বলেন, ‘আমি আরেকটি বাংলাওয়াশের অপেক্ষায়।’ ২০০৫ সালে বাংলাদেশের প্রথম টেস্ট জয় এসেছিল ডেভ হোয়াটমোরের হাত ধরে। এবার ডেভের চোখের সামনেই টেস্ট সিরিজে জিম্বাবুয়েকে ৩-০-তে হোয়াইটওয়াশ করে
বাংলাদেশ। এতে টেস্টে বাংলাদেশের পূর্ণ হয় ৭ম জয়। ডেভের উপস্থিতি বাংলাদেশের জন্য সৌভাগ্য বয়ে আনছে- এমন প্রসঙ্গে ডেভ বলেন, ‘আমি ভাগ্যে বিশ্বাস করি। কিন্তু জয়ের জন্য বসে থাকলেও চলে না। বাংলাদেশ ভাল খেলেই জিতবে।’ অনুষ্ঠানে আবেগ-আপ্লুত হোয়াটমোর বলেন, ‘আমি অবাক হলাম, সাত বছর আগে আমি চলে গেছি কিন্তু বাংলাদেশের মানুষ আমাকে এখনও এভাবে মনে রেখেছে। শুধু তাই না আমার সময় কোন ম্যাচে ভাল খেলেছে তাও তারা স্মরণে রেখেছে। আমি সত্যি বিস্মিত।’ কোচ ডেভের আমলে বাংলাদেশ দলের অধিনায়কের দায়িত্ব ছিল হাবিবুল বাশারের। গতকাল অনুষ্ঠানে বাশার বলেন, ‘টানা চার বছর আমরা জয় কি ভুলে গিয়েছিলাম। মাঠে যেতাম ভাল খেলার জন্য কিন্তু জয়ের চিন্তা করতে পারতাম না। কারণ অভ্যাসটি হারিয়ে ফেলেছিলাম। সে সময় দলের দায়িত্ব নিলেন হোয়াটমার। শিখালেন ক্রিকেট ব্যক্তিগত নয়, দলগত নৈপুণের খেলা। বাংলাদেশ ক্রিকেটে নতুন যুগের সূচনা হলো।’ কোচ ডেভের আমলে বাংলাদেশ দলের আরেক তারকা জাভেদ ওমর বেলিম গোল্লা বলেন, ‘আমরা ডেভের কাছে শিখেছি, কিভাবে জিততে হয়। শৃঙ্খলা কি এটা তিনি শিখিয়েছেন আমাদের। আমার মনে আছে শ্রীলঙ্কা সফরে দেরি করে ঘুম থেকে ওঠার কারণে হাবিবুল বাশারকে রেখেই আমাদের অনুশীলন বাস হোটেল ছেড়ে যায়। ২০০৩ সালে বাংলাদেশ দলের কোচের দায়িত্ব নেন ডেভ হোয়াটমোর। গতকাল ডেভ বলেন, ‘এটি সত্যি যে আমি যখন বাংলাদেশের দায়িত্ব নেই তখন করুণ অবস্থায় ছিল দলটি। কিন্তু আমার মনে আছে তোমরা বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে ভারতকে হারালে, এরপর ২০০৫ সালে প্রথম টেস্ট জিতলে। এরপর কার্ডিফে অস্ট্রেলিয়াকে আর ২০০৭’র বিশ্বকাপে ভারতের পর দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারায় বাংলাদেশ। আমার মনে আছে ২০০৩ সালে পাকিস্তানের বিপক্ষে অল্পের জন্য জয় হাতছাড়া হয় বাংলাদেশের। আমি বিশ্বাস করি বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। আমার বিশ্বাস বাংলাদেশ আরও ভাল করবে।’

সোর্সঃ ইন্টারনেট

No Responses

Write a response