পর্নোতারকা হিসেবে গর্বিত ভারতীয় বংশোদ্ভূত কানাডিয়ান পর্নো অভিনেত্রী সানি লিওন (ভিডিও)

ভারতীয় বংশোদ্ভূত কানাডিয়ান পর্নো অভিনেত্রী সানি লিওন নিজের অতীত নিয়ে লজ্জিত নয় বরং গর্ববোধ করেন তিনি। বর্তমানে তার দেশ-বিদেশে অনেক ভক্ত। আর এরই মধ্যে এই অভিনেত্রী বলিউডে নিজের অবস্থান দৃঢ় করে তুলছেন।

Sunny-Leone-Hot-Red-Saree-Photo-Shoot

একটি প্রভাবশালী সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে সাক্ষাৎকারে সানি জানান, অতীত নিয়ে লজ্জিত নন তিনি। আগের পেশার কারণেই বর্তমানে বলিউডে প্রতিষ্ঠিত হতে পেরেছেন তিনি।
সানি বলেন, “আমি এখন যেখানে আছি তার পিছনে আমার অতীতের অনেক বড় অবদান রয়েছে। তাই একেবারেই লজ্জিত নই আমি। পর্নোতারকা হিসেবে পরিচিত ছিলাম বলেই বলিউডে খুব সহজে জনপ্রিয় হতে পেরেছি।”
তিনি আরও বলেন, “আমার অ্যাডাল্ট লাইফের জন্যই আজকে ‘সানি লিওন’কে সবাই এক নামে চেনে। নাহলে কেউ আমাকে চিনতো না। আমি আমার আগের ক্যারিয়ারের জন্য লজ্জিত নই। আমি যদি সাধারণ সানি লিওন হিসেবে বলিউডে আসতাম তবে আমাকে দর্শক এতো সহজে গ্রহণ করত না। তবে আপাতত বলিউড থেকে কোথাও যাওয়ার ইচ্ছে নেই”।
পরিচালক আনিস বাজমি বলেছেন তিনি আপনার সাথে কখনো কাজ করতে চান না। কারণ আপনার অভিনীত সিনেমা ফ্যামিলি অডিয়েন্সে গ্রহণযোগ্য নয়। এ ব্যাপারে সানি বলেন, আমি জানিনা কে আমার সম্পর্কে কি ভাবে। তবে আমি এটা জানি যে আমার সাথে কাজ করার জন্য অসংখ্য মানুষ রয়েছেন।
২০১২-এর ইরোটিক থ্রিলার ‘জিসম টু’-এর মাধ্যমে বলিউডে প্রবেশ ঘটে সানির। এর আগে বিশ্বব্যাপী তার পরিচিতি ছিল একজন ইন্দো-কানাডিয়ান পর্নোতারকা হিসেবে। একজন পর্নোঅভিনেত্রীর বলিউডে প্রবেশের বিষয়টি নিয়ে সমালোচনার ঝড় বয়ে গিয়েছিল টিনসেল জুড়ে। সানির পাশাপাশি সে সময় সমালোচনার মুখে পড়েছিলেন ‘জিসম টু’-এর পরিচালক পুজা ভাটও। সমালোচকদের মতে সানিকে বলিউডে নিয়ে আসার মাধ্যমে তরুণ প্রজন্মকে পর্নোসিনেমা দেখার বিষয়ে উৎসাহিত করা হয়েছে।

ভাল লাগলে আমার সাইট থেকে ঘুরে আসবেনঃ How to do anything

No Responses

Write a response