নিজেকে সফল বলতেই পারি : অনন্ত জলিল

নিজেকে সফল বলতেই পারি : অনন্ত জলিলঈদ উপলক্ষে দারুণ জমজমাট অবস্থা এখন ঢালিউড পাড়ায়। ঈদের ছুটিতে ঘুরে বেড়ানোর পাশাপাশি অনেকেই ছুটছেন সিনেমা হলে, প্রিয়জনদের সঙ্গে নিয়ে উপভোগ করছেন চলচ্চিত্র। এবারের ঈদে ঢালিউডে মুক্তি পেয়েছে সাতটি চলচ্চিত্র। এর মধ্যে আলোচনার শীর্ষে অবস্থান করছে অনন্ত জলিল অভিনীত, প্রযোজিত ও পরিচালিত চলচ্চিত্র ‘মোস্টেওয়েলকাম-টু’। এছাড়াও শাকিব খান অভিনীত ও প্রযোজিত ‘হিরো : দ্য সুপারস্টার’ এবং বাপ্পি-মাহি অভিনীত ‘হানিমুন’ ছবিটি দেখতেও প্রেক্ষাগৃহগুলোতে রয়েছে উপচেপড়া ভীড়। সব মিলিয়ে ঢালিউড পাড়ায় এখন উৎসবের আমেজ। ঈদের চলচ্চিত্র প্রসঙ্গে শুক্রবার রাইজিংবিডির সঙ্গে কথা বলেছেন চিত্রনায়ক অনন্ত জলিল। সাক্ষাৎকারের চুম্বক অংশ তুলে ধরা হলো পাঠকের জন্য।

ঈদ উপলক্ষে দারুণ জমজমাট অবস্থা এখন ঢালিউড পাড়ায়। ঈদের ছুটিতে ঘুরে বেড়ানোর পাশাপাশি অনেকেই ছুটছেন সিনেমা হলে, প্রিয়জনদের সঙ্গে নিয়ে উপভোগ করছেন চলচ্চিত্র। এবারের ঈদে ঢালিউডে মুক্তি পেয়েছে সাতটি চলচ্চিত্র। এর মধ্যে আলোচনার শীর্ষে অবস্থান করছে অনন্ত জলিল অভিনীত, প্রযোজিত ও পরিচালিত চলচ্চিত্র ‘মোস্টেওয়েলকাম-টু’। এছাড়াও শাকিব খান অভিনীত ও প্রযোজিত ‘হিরো : দ্য সুপারস্টার’ এবং বাপ্পি-মাহি অভিনীত ‘হানিমুন’ ছবিটি দেখতেও প্রেক্ষাগৃহগুলোতে রয়েছে উপচেপড়া ভীড়। সব মিলিয়ে ঢালিউড পাড়ায় এখন উৎসবের আমেজ। ঈদের চলচ্চিত্র প্রসঙ্গে শুক্রবার রাইজিংবিডির সঙ্গে কথা বলেছেন চিত্রনায়ক অনন্ত জলিল। সাক্ষাৎকারের চুম্বক অংশ তুলে ধরা হলো পাঠকের জন্য।

রাইজিংবিডি : মোস্টওয়েলকাম-টু প্রসঙ্গ নিয়েই আপনার কাছ থেকে শুনতে চাই?

অনন্ত জলিল : এ প্রসঙ্গে তো এখন দর্শক বলবেন আমি শুনবো। আমরা চেষ্টা করেছি একটা ভালো সিনেমা নির্মাণ করতে। সেখানে কতোটা সফল হয়েছি, ব্যর্থ হয়েছি সেটা দর্শকরা বিচার করবেন। আপনারা সাংবাদিকরা মূল্যায়ন করবেন। আমি শুধু বলবো, মোস্টওয়েলকাম-টু ছবিতে অত্যাধুনিক সব সুযোগ-সুবিধাই ব্যবহার করেছি। আমাদের আগের ছবিগুলোতেও দেখেছেন। আমরা চেষ্টা করেছি বাংলা চলচ্চিত্রকে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে নিয়ে যেতে। তার জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছি। বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের ইতিহাসে এমন আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার হয়নি। এখন মোস্টওয়েলকাম-টু দর্শকের সামনে আছে, সবাই দেখবেন। সবার ভালো লাগলেই আমাদের পরিশ্রম স্বার্থক হবে।

রাইজিংবিডি : ছবিটি মুক্তির পর দর্শক প্রতিক্রিয়া কেমন পাচ্ছেন?

অনন্ত জলিল : এটা তো আমাদের থেকে আপনারা সাংবাদিকরা ভালো বলতে পারবেন। তবে আমি শুধু বলবো সিনেমা হলে মানুষের উপচেপড়া ভীড়। যমুনা ব্লকবাস্টারে আগের দিনই টিকেট শেষ হয়ে যাচ্ছে। ছয়টা পর্দায় মোস্টওয়েলকাম-টু ছবিটি দেখানো হচ্ছে। সবগুলো প্রেক্ষাগৃহেই আগের দিন টিকেট শেষ হয়ে যাচ্ছে। এতে প্রাথমিকভাবে আমরা নিজেদেরকে সফল বলতেই পারি। মানুষ আমাদেরকে ভালোবেসে সিনেমা হলে আসছে।

রাইজিংবিডি : আপানারা তো হলে গিয়ে ছবিটি দেখছেন, এই অভিজ্ঞতা যদি বলেন?

অনন্ত জলিল : হ্যা, আমি এবং বর্ষা দর্শকের সঙ্গে বসে ছবিটি দেখছি। আমরা তো অভিভূত, প্রচুর মানুষ মোস্টওয়েলকাম-টু দেখতে আসছেন। সিনেমা শেষ হওয়ার পর দর্শকের সঙ্গে কথা বলছি। তারা বলেছেন বাংলাদেশের চলচ্চিত্রে এতো চমৎকার ম্যাকিং তারা এর আগে দেখেননি। সামনের দিনগুলোতেও দর্শকের সঙ্গে বসে সিনেমাটি দেখবো। এরপর ঢাকার বাইরের প্রেক্ষাগৃহে গিয়ে সাধারণ দর্শকের সঙ্গে বসে ছবিটি দেখার ইচ্ছে আছে।

রাইজিংবিডি : এখনো তো সব প্রেক্ষাগৃহে ছবিটি মুক্তি দেয়া হয় নি, এ নিয়ে আপনাদের পরিকল্পনাগুলো বলবেন কি?

অনন্ত জলিল : আমরা আগামী সপ্তাহ থেকে সারা দেশের ৮০টি প্রেক্ষাগৃহে ছবিটি মুক্তির ব্যাপারে পরিকল্পনা করছি। এরই মধ্যে অনেকগুলো প্রেক্ষাগৃহের মালিক আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন। আরেকটা তথ্য জানিয়ে রাখি ২ আগস্ট যমুনা ব্লকবাস্টারে ছবিটি দেখবেন মাননীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এবং ৭ আগস্ট একই হলে মাননীয় অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত সাহেব ছবিটি দেখবেন বলে আমাদেরকে জানিয়েছেন।

রাইজিংবিডি : এবারের ঈদে তো আরো ছয়টি ছবি মুক্তি পেয়েছে, সামগ্রীকভাবে আপনার মূল্যায়ন শুনতে চাই?

অনন্ত জলিল : এটা আমাদের চলচ্চিত্রের জন্য খুবই ইতিবাচক দিক। শাকিব সাহেব এই ঈদে প্রথমবারের মতো প্রযোজক হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছেন। আমি শুরু থেকেই বিষয়টিকে স্বাগত জানিয়েছি। এখনো বলবো আমরা সবাই চেষ্টা করলে বাংলাদেশের ছবি আন্তর্জাতিক অঙ্গনে গ্রহণযোগ্য হবেই। ঈদে মোস্টওয়েলকাম-টু ছাড়াও যে ছবিগুলো মুক্তি পেয়েছে সবার জন্য শুভ কামনা। ইচ্ছে আছে সবগুলো ছবি দেখবো।

রাইজিংবিডি : আপনাকে অনেক ধন্যবাদ

অনন্ত জলিল : আপনাকেও অনেক ধন্যবাদ। রাইজিংবিডি পরিবারের সকলের জন্য শুভ কামনা। আর আমি সম্মানিত দর্শকদের বলতে চাই, আপনারা হলে এসে ছবি দেখুন। নিঃশ্বার্থ ভালোবাসা দেখে, আপনারা আমাদেরকে নিঃশ্বার্থ ভালোবাসা দিয়েছেন, আমাদেরকে উৎসাহ যুগিয়েছেন। এবারও আপনাদের ভালোবাসা পাবো। সামনের দিনগুলোতে আরো ভালো ভালো ছবি আপনাদেরকে উপহার দিতে চাই। – See more at: http://www.risingbd.com/detailsnews.php?nssl=b1410b1709c7112ab6fe2a53bafe143f#sthash.C3pU6GZS.dpuf

প্রশ্ন : মোস্টওয়েলকাম-টু প্রসঙ্গ নিয়েই আপনার কাছ থেকে শুনতে চাই?

অনন্ত জলিল : এ প্রসঙ্গে তো এখন দর্শক বলবেন আমি শুনবো। আমরা চেষ্টা করেছি একটা ভালো সিনেমা নির্মাণ করতে। সেখানে কতোটা সফল হয়েছি, ব্যর্থ হয়েছি সেটা দর্শকরা বিচার করবেন। আপনারা সাংবাদিকরা মূল্যায়ন করবেন। আমি শুধু বলবো, মোস্টওয়েলকাম-টু ছবিতে অত্যাধুনিক সব সুযোগ-সুবিধাই ব্যবহার করেছি। আমাদের আগের ছবিগুলোতেও দেখেছেন। আমরা চেষ্টা করেছি বাংলা চলচ্চিত্রকে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে নিয়ে যেতে। তার জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছি। বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের ইতিহাসে এমন আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার হয়নি। এখন মোস্টওয়েলকাম-টু দর্শকের সামনে আছে, সবাই দেখবেন। সবার ভালো লাগলেই আমাদের পরিশ্রম স্বার্থক হবে।

প্রশ্ন : ছবিটি মুক্তির পর দর্শক প্রতিক্রিয়া কেমন পাচ্ছেন?

অনন্ত জলিল : এটা তো আমাদের থেকে আপনারা সাংবাদিকরা ভালো বলতে পারবেন। তবে আমি শুধু বলবো সিনেমা হলে মানুষের উপচেপড়া ভীড়। যমুনা ব্লকবাস্টারে আগের দিনই টিকেট শেষ হয়ে যাচ্ছে। ছয়টা পর্দায় মোস্টওয়েলকাম-টু ছবিটি দেখানো হচ্ছে। সবগুলো প্রেক্ষাগৃহেই আগের দিন টিকেট শেষ হয়ে যাচ্ছে। এতে প্রাথমিকভাবে আমরা নিজেদেরকে সফল বলতেই পারি। মানুষ আমাদেরকে ভালোবেসে সিনেমা হলে আসছে।

প্রশ্ন: আপানারা তো হলে গিয়ে ছবিটি দেখছেন, এই অভিজ্ঞতা যদি বলেন?

অনন্ত জলিল : হ্যা, আমি এবং বর্ষা দর্শকের সঙ্গে বসে ছবিটি দেখছি। আমরা তো অভিভূত, প্রচুর মানুষ মোস্টওয়েলকাম-টু দেখতে আসছেন। সিনেমা শেষ হওয়ার পর দর্শকের সঙ্গে কথা বলছি। তারা বলেছেন বাংলাদেশের চলচ্চিত্রে এতো চমৎকার ম্যাকিং তারা এর আগে দেখেননি। সামনের দিনগুলোতেও দর্শকের সঙ্গে বসে সিনেমাটি দেখবো। এরপর ঢাকার বাইরের প্রেক্ষাগৃহে গিয়ে সাধারণ দর্শকের সঙ্গে বসে ছবিটি দেখার ইচ্ছে আছে।

প্রশ্ন : এখনো তো সব প্রেক্ষাগৃহে ছবিটি মুক্তি দেয়া হয় নি, এ নিয়ে আপনাদের পরিকল্পনাগুলো বলবেন কি?

অনন্ত জলিল : আমরা আগামী সপ্তাহ থেকে সারা দেশের ৮০টি প্রেক্ষাগৃহে ছবিটি মুক্তির ব্যাপারে পরিকল্পনা করছি। এরই মধ্যে অনেকগুলো প্রেক্ষাগৃহের মালিক আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন। আরেকটা তথ্য জানিয়ে রাখি ২ আগস্ট যমুনা ব্লকবাস্টারে ছবিটি দেখবেন মাননীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এবং ৭ আগস্ট একই হলে মাননীয় অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত সাহেব ছবিটি দেখবেন বলে আমাদেরকে জানিয়েছেন।

প্রশ্ন : এবারের ঈদে তো আরো ছয়টি ছবি মুক্তি পেয়েছে, সামগ্রীকভাবে আপনার মূল্যায়ন শুনতে চাই?

অনন্ত জলিল : এটা আমাদের চলচ্চিত্রের জন্য খুবই ইতিবাচক দিক। শাকিব সাহেব এই ঈদে প্রথমবারের মতো প্রযোজক হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছেন। আমি শুরু থেকেই বিষয়টিকে স্বাগত জানিয়েছি। এখনো বলবো আমরা সবাই চেষ্টা করলে বাংলাদেশের ছবি আন্তর্জাতিক অঙ্গনে গ্রহণযোগ্য হবেই। ঈদে মোস্টওয়েলকাম-টু ছাড়াও যে ছবিগুলো মুক্তি পেয়েছে সবার জন্য শুভ কামনা। ইচ্ছে আছে সবগুলো ছবি দেখবো।

প্রশ্ন : আপনাকে অনেক ধন্যবাদ

অনন্ত জলিল : আপনাকেও অনেক ধন্যবাদ। রাইজিংবিডি পরিবারের সকলের জন্য শুভ কামনা। আর আমি সম্মানিত দর্শকদের বলতে চাই, আপনারা হলে এসে ছবি দেখুন। নিঃশ্বার্থ ভালোবাসা দেখে, আপনারা আমাদেরকে নিঃশ্বার্থ ভালোবাসা দিয়েছেন, আমাদেরকে উৎসাহ যুগিয়েছেন। এবারও আপনাদের ভালোবাসা পাবো। সামনের দিনগুলোতে আরো ভালো ভালো ছবি আপনাদেরকে উপহার দিতে চাই।

No Responses

Write a response