দশ বছর কাটিয়ে দিলেন মেসি!

messi_SwadeshNews24*১৭ সেপ্টেম্বর, ২০০০
*১৬ নভেম্বর, ২০০৩
*১৬ অক্টোবর, ২০০৪
পঞ্জিকার পাতায় তিনটি তারিখ লিওনেল মেসি দাগিয়ে রেখেছেন কি না, তা জানা নেই। তবে তারিখ তিনটি যে আর্জেন্টাইন তারকার জীবনের গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্তকে নির্দেশ করছে, সেটা বোধ হয় স্বীকার করবেন খোদ মেসিই। ক্যালেন্ডারের পাতায় দাগ দিয়ে না রাখলেও প্রতি বছর এই তিনটি তারিখে মেসি অবশ্যই কিছুটা নস্টালজিয়ায় আক্রান্ত হন। পুরোনো দিনের কথা মনে করে হেসে ওঠেন আপন মনেই। এই মুহূর্তে নিজের অবস্থান চিন্তা করে ভাবেন, কীভাবেই না কেটে গেল দিনগুলো। এই সেদিন না শুরু করলাম!
উল্লিখিত প্রথম তারিখে ২০০০ সালে মাত্র ১৩ বছর বয়সে বার্সেলোনায় নাম লিখিয়েছিলেন মেসি। ২০০৩ সালে, দ্বিতীয় তারিখে বার্সার জার্সি গায়ে পোর্তোর বিপক্ষে অভিষিক্ত হয়েছিলেন তিনি। শেষ তারিখে, অর্থ্যাৎ, ২০০৪ সালের ১৬ অক্টোবর, আজ থেকে ঠিক দশ বছর আগে বার্সেলোনার জার্সিতে প্রথম কোনো প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচে মাঠে নেমেছিলেন তিনি। আজ বৃহস্পতিবার মেসির প্রতিযোগিতামূলক ক্যারিয়ারের এক দশক পূর্ণ হলো।
এ দিনেই লা লিগায় এসপানেওলের বিপক্ষে অভিষেক হয়েছিল আর্জেন্টাইন জাদুকরের। ওই সময় তিনিই ছিলেন লা লিগার ইতিহাসে সর্বকনিষ্ঠ খেলোয়াড়। ২০০৭ সালের সেপ্টেম্বরে অবশ্য বোয়ান কিরকিচ মেসির এ রেকর্ডটি ভেঙে দেন। 
গত এক দশকে কত কিছুই না ঘটিয়েছেন মেসি। তাঁর ক্লাব বার্সেলোনা তাঁর কাছ থেকে পেয়েছে অনেক কিছুই। খেলোয়াড় হিসেবেও তাঁর প্রাপ্তির খাতাটা দারুণ উজ্জল। কাতালান জায়ান্টদের হয়ে মেসি লা লিগা জিতেছেন ৬টি, জিতেছেন তিনটি চ্যাম্পিয়নস লিগ। ক্লাব বিশ্বকাপও হাত দিয়ে ছঁুয়ে দেখা হয়ে গেছে তাঁর। ব্যক্তি হিসেবে টানা চারবার জিতেছেন ফিফার বর্ষসেরা ফুটবলারের সম্মান। একের পর এক মোহনীয় গোলে, অর্জনের পর অর্জনে মুগ্ধ করেছেন বার্সা সমর্থকদের। সবচেয়ে বড় কথা পেয়েছেন বিশ্বময় অগুণতি দর্শক-সমর্থকের ভালোবাসা। 
কেবল দর্শকদের ভালোবাসা-ই নয়, অতীতের ও হালের তারকারাও স্ত্ততিতে ভাসিয়েছেন মেসিকে। প্রয়াত রিয়াল কিংবদন্তি আলফ্রেডো ডি স্টেফানো বলেছিলেন, ‘সে ঝলকে ওঠা বিদ্যুৎ। এই ঔজ্জ্বল্যই সবার থেকে আলাদা করে তাকে।’ প্রিয় গুরু পেপ গার্দিওলা মেসি প্রসঙ্গে একবার বলেছিলেন, ‘একদিন নাতি-পুতিদের গল্প করতে পারব আমি মেসির কোচ ছিলাম।’ 
পুর্তগিজ কিংবদন্তি লুইস ফিগো বলেছিলেন, ‘ওর খেলা দেখা মানেই শিহরিত হওয়া’। উয়েফা সভাপতি মিশেল প্লাতিনির মন্তব্য, ‘সে সাংঘাতিক, তারকাদের তারকা, সে দুরন্ত’। আর্জেন্টিনা কিংবদন্তি হোর্হে ভালদানোর মূল্যায়ন, ‘সে বার্সা অ্যাকাডেমি ও আর্জেন্টিনার রাস্তার ফুটবলের দারুণ এক মিশেল’। 
গত নয় বছরে ছয় শিরোপাজয়ী মেসি গতবার জিততে পারেননি লিগ শিরোপা। ১০ বছর পূর্তি স্মরণীয় করে রাখতে এবার কি দারুণ কিছু করে দেখাবেন বার্সা ফরোয়ার্ড? সূত্র: মার্কা, গোলডটকম।

সোর্সঃ ইন্টারনেট

No Responses

Write a response