জেনে নিন 3G, 3.5G এবং 3.9G সম্পর্কে বিস্তারিত

image

3G, 3.5G এবং 3.9G সম্পর্কে বিস্তারিতঃ

পৃথিবীর উন্নত দেশগুলোতে 4G বা LTE চালু হয়ে গেলেও, আমাদের দেশে সদ্যই যাত্রা শুরু করেছে 3G. একবছর আগে থেকে টেলিটক এই সেবা দিয়ে গেলেও তা সাধারণ গ্রাহকদের আকৃষ্ট করতে পারেনি, অন্যদিকে এই একবছরে টেলিটকের 3G সারাদেশে ছড়িয়ে পড়ার কথা থাকলেও, সেটা হয়নি। অন্যদিকে মাত্রই গ্রামীণফোন, রবি এবং এয়ারটেল 3G সেবা দেয়ার জন্য লাইসেন্স পেয়েছে, এবার দেশের মানুষ একটু নড়েচড়েই বসেছে 3G সম্পর্কে। তবে বাজারে আসার আগেই তাদের যথেষ্টই বিভ্রান্তিতে ফেলে দিয়েছে রবির 3.5G, গ্রামীণফোনের 3.9G এই অফারগুলো।

3G, 3.5G এবং 3.9G সম্পর্কে বিস্তারিত

3G এর বাংলা অর্থ দাঁড়ায় তৃতীয় প্রজন্মের (Third Generation) ইন্টারনেট সেবা। যার গতি বর্তমানে চালু EDGE এর চেয়ে বেশী।

3.5G হলো HSDPA (High Speed Downlink Packet Access) হাই স্পিড ডাউনলিংক প্যাকেট অ্যাক্সেস, যার মাধ্যমে প্রতি সেকেন্ডে 7.2 Mbit ডাটা পাওয়া সম্ভব। এবং HSUPA (High Speed Uplink Packet Access) হাই স্পিড আপলিংক প্যাকেট এক্সেস এর মাধ্যমে প্রতি সেকেন্ডে 5.8 mbit আপলোড স্পীড পাওয়া যায়।

3.7G হলো HSPA (High Speed Packet Access) হাই স্পিড প্যাকেট এক্সেস যার মাধ্যমে প্রতি সেকেন্ডে 21থেকে 28 mbit স্পিড পাওয়া সম্ভব। গ্রামীণফোন বাংলাদেশে 3.9G HSPA+ technology চালু করতে যাচ্ছে।

3.9G হলো Pre-4G যা HSPA+(Evolved High Speed Packet Access) প্রযুক্তিতে প্রতি সেকেন্ডে 168mbit পর্যন্ত স্পিড পাওয়া সম্ভব। এরপরে আর নেই, এরপরে যেতে হলে আপনাকে পাকাপাকিভাবে 4Gতে চলে যেতে হবে, যেটি এখনও বাংলাদেশে চালু হয়নি।

আপনি যদি 3G নেটওয়ার্ক এলাকায় অবস্থান করেন তবে আপনার মোবাইলে 3G লেখা দেখাবে, আপনি যদি 3.5G বা 3.7G নেটওয়ার্ক এলাকায় অবস্থান করেন তবে আপনার মোবাইলে H লেখা দেখাবে, আর আপনি যদি 3.8G বা 3.9G নেটওয়ার্ক এলাকায় অবস্থান করেন তবে আপনার মোবাইলে H+ লেখা দেখাবে।

এবার আসুন দেখা যাক *3G চালু হলে কি সুবিধা আমরা পেতে যাচ্ছিঃ

একই সাথে ভিডিও এবং অডিও কল করতে পারা যাবে। ভয়েস কোয়ালিটি পরিষ্কার শোনা যাবে। যে জিনিসটির জন্য 3G’র এতো সুনাম সেই দ্রুত গতির ইন্টারনেট ব্যবহার করতে পারবেন। অতি দ্রুত ভিডিও, অডিও, ভালো মানের ছবি ডাউনলোড কিংবা আপলোড করে বন্ধু বান্ধবদের সাথে শেয়ার করতে পারবেন। আপনার মূল্যবান সময় বাঁচিয়ে অতি দ্রুত ছবি, ফাইলস, ইমেইল করতে পারবেন। আপনি চলন্ত অবস্থাতেই বিভিন্ন লাইভ টিভি চ্যানেল দেখতে পারবেন।

3G নেটওয়ার্ক এর জন্য কি থাকা লাগে?

একটি 64k সিম যা 3G নেটওয়ার্ক সাপোর্ট করে। না থাকলেও সমস্যা নেই কারণ গ্রামীণফোনে ,রবি, এয়ারটেল ঘোষণা দিয়েছে 3Gতে আপগ্রেড করতে তারা কোনো খরচ রাখছে না। অবশ্যই 3G network সাপোর্ট করে এমন কয়েকটি প্লাগিন্স। 3G এর গতি নির্ভর করবে এর ব্যবহারকারী এবং আপনি কোন প্যাকেজের সাবস্কাইবার তার ওপর।

1

No Responses

Write a response