এই ঈদের দিনে আপনি যেভাবে সাজতে পারেন !

ঈদের দিনের সাজ ! ঈদের আর বাকি মাত্র কয়েকটি দিন। কেনাকাটা প্রায় শেষ চাকুরীজীবি স্বর্ণার। অফিস এবং রোযার ফাঁকে শপিংয়ে বেশ বেগ পেতে হয়েছে তাকে। তবে এবার নিজেকে সুন্দর করে নেওয়ার ব্যস্ত তিনি। ইফতারের পরে প্রায় দিনই ছুটছেন বিউটি পার্লারে। আজ চুল কাটছেন তো কাল মেনিকিওর-পেডিকিওরে ব্যস্ত থাকছেন। অন্যদিন আবার যেতে হচ্ছে ফেসিয়ালের জন্যে। এভাবেই চলছে ঈদের আগ মুহুর্তের প্রস্তুতি। বছরের ওই দিনটিতে নিজেকে সবচেয়ে সেরা সাজাতে তরুণীদের চলে বিরামহীন পরিশ্রম।

ঈদের সাজের প্রথম কথাই হচ্ছে, সাজ যেনো আপনার ব্যক্তিত্বে সঙ্গে মানানসই হয়। বাসায় অতিথি এলে যেনো আপনার চেহারায় অভ্যর্থনাসূচক একটা ইমেজ দেখতে পায়। আবার আপনি কোথাও গেলে সাজটা করুন এমনভাবে, যেন আপনাকে দেখে অন্যের ক্লান্তি মিটে যায়। আমাদের মধ্যে অনেকে আছেন যারা নিজের চেহারা, রং, সাজ নিয়ে হীনমন্যতায় কখনো বা দুর্ভাবনায় ভোগেন। তাদের জন্য ঈদের সাজের প্রথম কথাই হচ্ছে এসব ত্রুটির কথা ভুলে যান। ঈদ এসেছে আনন্দের জন্য যাবতীয় দায়িত্ব পালনের পর সেই আনন্দ উপভোগ করুন।

আপনি গৃহিণী বা তরুণী বা টিনেজার যে বয়সেরই হোন না কেন সাজটাকে অন্তত দু’তিনভাবে ভাগ করে নিন। সেই অনুযায়ী পরিকল্পনা করুন সকাল, দুপুর এবং রাতের সাজ এবং পোশাক কী হবে।

সকালে বাড়িতে কাজের চাপ বেশি থাকে এসময় সালোয়ার কামিজ অথবা সুতি শাড়ি পরুন। হালকা ফাউন্ডেশন, ফেস পাউডার, লিপিস্টিক আর কাজল দিয়ে সাজ শেষ করুন। পোশাকের সঙ্গে মিলিয়ে ছোট একটি টিপও দিতে পারেন।

গরমের সময় ঈদ হচ্ছে, এজন্যে দুপুরে হালকা রঙের পোশাক নির্বাচন করুন। আর সাজের ক্ষেত্রে ফাউন্ডেশনের সঙ্গে পাউডার মেখে হালকা করে ব্লাশন বুলিয়ে নিন দুই গালে। আর ঠোঁটে একে নিনন লিপগ্লস। চোখের সাজে ভিন্নতা আনতে স্যাডো আর আইলাইনার দিন। পোশাকের সঙ্গে মিল রেখে কানে আর গলায় ছোট গহনা পরুন।

রাতে ভারী সাজ দিতে পারেন। বাইরে গেলে শাড়ি পুরন। মুখ, গলায় ফাউন্ডেশন কমপ্যাক্ট পাউডার দিন। সাজ বেশি সময় স্থায়ী করতে স্পঞ্জ পানিতে ভিজিয়ে মুখে চেপে মেকাপ বসিয়ে নিন।

চোখে মাশকারা, আইলাইনার এবং গাঢ় রংয়ের স্যাডো ব্যবহার করুন। ঠোঁটে লিপস্টিক দিন। হাত ভর্তি চুড়ি পরুন। গলায় এবং কানে ভারি গয়না পরুন। বড় একটি টিপ দিন। এবার ব্লাশন দিয়ে সাজ পূর্ণ করুন।

পোশাকের রং নির্বাচনের ক্ষেত্রে দিনের বেলায় বেছে নিতে পরেন গোলাপি, নীল, সাদা, অফহোয়াইট, স্কিন কালার, পিচ ইত্যাদি হাল্কা শেডের রংগুলো। রাতের অনুষ্ঠানের জন্য পরতে পারেন উজ্জ্বল ও গাঢ় রঙের পোশাক যেমন- গাঢ় নীল, ম্যাজেন্টা, লাল, খয়েরি, মেরুন, কালো, গাঢ় হলুদ, সবুজ ইত্যাদি।

সোর্সঃ ইন্টারনেট

No Responses

Write a response