ই-কমার্স ব্যবসায় পুঁজি পরিকল্পনা: ১ লাখ থেকে ৫ লাখ টাকার মধ্যে

e-shop keyboard key. Finger

আমাদের দেশে ই -কমার্সের ইতিহাস পনের বছরের। কিন্তু এর সাফল্য সে তুলনায় কম। ডেলিভারী ও পেমেন্ট গেটওয়ে নিয়ে সমস্যা ছিল বলে ব্যবসাটা এগোয়নি। আর বর্তমানে এই দুটি বিষয়ে অনেকটা সমাধান আসার পরও এই বিজনেস সেক্টর আমাদের আশপাশের দেশের তুলনায় পিছিয়ে, এমনকি ভিয়েতনাম, কম্বোডিয়ার চেয়েও। এর কারণ হলো আমাদের এখানে ই-কমার্স মানে সবার ধারণা এটা একটা ওয়েবসাইট বানিয়ে পন্যের ছবি তুলে দিলেই। বাজিমাত। অথচ অন্যান্য ব্যবসার মতো এটাও যে একটা ব্যবসা এই কথা সবাই ভুলে যায়। যদিও ইদানিং ফেসবুক মার্কেটিং করে অনেকে কাস্টমার কানেক্ট করছেন। তবুও ব্যবসায়ের জন্য আরও অনেক কিছু জানা বোঝা প্রয়োজন। তার মধ্যে অন্যতম হলো পরিকল্পনা।

আপনার কত টাকা পুঁজি হলে আপনি কিভাবে ব্যবসার প্লান করবেন, সেই রোডম্যাপ থাকলো আজ। আপনি যার কাছে যে সার্ভিসের জন্য যাবেন তার রেট অনুসারে ১৫-২০ শতাংশ বেশী খরচ হতে পারে। এটা কিন্তু ব্যবসার ধরন ও পর্যায় অনুসারে কম বেশী হবে। আবার উদ্যোক্তার যোগ্যতার উপর ভিত্তি করেও কমবেশী হবে। কারণ যিনি নিজে ওয়েব ডিজাইন করবেন। তার জন্য বিষয়টি একটু অন্যরকমই হবে।

আর একটা কথা বলে রাখা দরকার, এখানে আমি আমার দৃষ্টিভঙ্গি থেকে হিসেবটা দিলাম। আপনি একজন ব্যবসায়ী, আপনার নিজস্ব প্লান পরিকল্পনা ও দৃষ্টিভঙ্গি থাকতে পারে। জরুরী নয় যে সেটার সাথে আমার চিন্তা মিলতে হবে।

১. যদি আপনার পুঁজি হয় মাত্র ১০০,০০০ টাকা

অফিস: দরকার নেই, আপনার বাসাকে ঠিকানা হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন
কর্মচারী বেতন: দরকার নেই, হয়তো একজন থাকতে পারে, যদি আপনার সময় না থাকে: ৮,০০০ টাকা
ডোমেইন, হোস্টিং ও ওয়েবসাইট: সর্বনিম্ন ১০,০০০ টাকা
নাম লোগো ডিজাইন: নিজেই করুন, বা পরিচিত কারো সাহায্য নিন
কার্ড প্যাড খাম ছাপা: কার্ড ৫০০ টাকা, মানি রিসিপ্ট ১৫০০ টাকা: মোট ২০০০ টাকা
ব্রশিওর ছাপা: দরকার নেই,
শপিং ব্যাগ ছাপা: দরকার নেই,
পেমেন্ট গেটওয়ে: এই সার্ভিসটা নিন- ২০০০ টাকা:
ব্যাংক একাউন্ট: ২০০০ টাকা
মার্কেটিং- সোশ্যাল মিডিয়া: বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ সাইটে পেইজ খুলুন
মার্কেটিং- ব্লগ: বিভিন্ন ব্লগে নিজেই লিখুন
মার্কেটিং- ফেস্টুন: ২০টা ফেস্টুন লাগান : খরচ কমপক্ষে ৪,০০০ টাকা
মার্কেটিং- ফোন: কিছু লোককে ফোন দিয়ে জানাতে পারেন, খরচ ২০০০ টাকা
মার্কেটিং- এসএমএস: আপনার ফোন থেকে কমদামে এসএমএস কিনুন, খরচ ১০০০ টাকা
মার্কেটিং- ফেইসবুক: ফেইসবুকে পেইজে লাইক ও মেম্বার বাড়ান, বুস্ট পোস্ট: ২০০০ টাকা
মার্কেটিং- ই মেইল: নিজের মেইল থেকে পরিচিতদের মেইল পাঠান
মার্কেটিং- লিফলেট/ স্টিকার: ৫০০০ স্টিকার বা লিফলেট ছাপুন- ৫০০০ টাকা,
প্যাকিং সরঞ্জাম: অর্ডারের পরে, আপাতত অল্পকিছু কিনুন খরচ ২০০০ টাকা
যাতায়াত ও যোগাযোগ: পণ্য ক্রয়মূল্যের সাথে হিসাব করুন। তবুও অন্যান্য : খরচ ২০০০ টাকা
পণ্য স্টক করা: দুই ধাপে ২০+২০= ৪০ হাজার টাকা
কুরিয়ার খরচ: প্রথমদিকে ৫,০০০ টাকা
ট্রেড লাইসেন্স ও টিন: ৩০০০ টাকা
ই ক্যাব মেম্বারশিপ: ৩০০০ টাকা
অন্যান্য খরচ: ৫০০০ টাকা
মোট খরচ: কমবেশী: ১০০, ০০০ টাকা। আপনার নিজস্ব প্লান এর উপর ভিত্তি করে কমবেশী হতে পারে।
নোট: একটা কথা মনে রাখবেন, আপনার পুঁজি যত কম হবে। পন্য এবং মার্কেটিংয়ে আপনি তত কম বিনিয়োগ করবেন। সূতরাং বিক্রিও সে হারে হবে। তাই এক লক্ষ টাকা বিনিয়োগ করে মাসে ৫০ হাজার টাকার লেনদেন করলে হয়তো ৮/১০ হাজার টাকা লাভ হবে। আপনাকে সেভাবেই ভাবতে হবে। যদি আপনি ব্যবসাটাকে চালিয়ে নিতে পারেন। তাহলে হয়তো একদিন কাঙ্খিত লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারবেন।

২. যদি আপনার পুঁজি হয় মাত্র ২০০,০০০ টাকা

অফিস: দরকার নেই, আপনার বাসাকে ঠিকানা হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন
কর্মচারী বেতন: যদি আপনার সময় না থাকে: ৮,০০০ টাকা। দক্ষ কর্মী হলে আরো বেশী প্রয়োজন হতে পারে।
ডোমেইন, হোস্টিং ওয়েবসাইট কমপক্ষে: ১০,০০০ টাকা, তবে ভালো একটা সাইটের জন্য বাজেট বাড়তে পারে।
নাম লোগো ডিজাইন: নিজেই করুন, বা পরিচিত কারো সাহায্য নিন। অথবা ৩০০০ টাকা থেকে ৫০০০ টাকা
কার্ড প্যাড খাম ছাপা: কার্ড ৫০০ , রিসিপ্ট ১৫০০, প্যাড ২০০০: মোট ৪০০০ টাকা থেকে ৫০০০ টাকা
ব্রশিওর ছাপা: দরকার নেই,
শপিং ব্যাগ ছাপা: দরকার নেই,
পেমেন্ট গেটওয়ে: এই সার্ভিসটা নিন- ২০০০ টাকা।
ব্যাংক একাউন্ট: ২০০০ টাকা
মার্কেটিং- সোশ্যাল মিডিয়া: বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ সাইটে পেইজ খুলুন
মার্কেটিং- ব্লগ: বিভিন্ন ব্লগে নিজেই লিখুন
মার্কেটিং- ফেস্টুন: ৩০টা ফেস্টুন লাগান : খরচ ৬, ০০০ টাকা
মার্কেটিং- ফোন: কিছু লোককে ফোন দিয়ে জানাতে পারেন, খরচ ২০০০ টাকা
মার্কেটিং- এসএমএস: আপনার ফোন থেকে কমদামে এসএমএস কিনুন, খরচ ২০০০ টাকা
মার্কেটিং- ফেইসবুক: ফেইসবুকে পেইজে লাইক ও মেম্বার বাড়ান, বুস্ট পোস্ট: ৩০০০ টাকা
মার্কেটিং- ই মেইল: পরিচিতদের মেইল পাঠান, ফ্রি। নেট বিল: ১০০০ টাকা
মার্কেটিং- লিফলেট/ স্টিকার:৫০০০ স্টিকার বা লিফলেট ছাপুন- ৫০০০ টাকা
প্যাকিং সরঞ্জাম: অর্ডারের পরে, আপাতত অল্পকিছু কিনুন খরচ ৩০০০ টাকা
যাতায়াত ও যোগাযোগ: পণ্য ক্রয়মূল্যের সাথে হিসাব করুন। তবুও অন্যান্য : খরচ ২০০০ টাকা
কুরিয়ার খরচ: প্রথমদিকে ৫০০০ টাকা
ট্রেড লাইসেন্স ও টিন: ৪০০০ টাকা
ই ক্যাব মেম্বারশিপ: ৩০০০ টাকা
অন্যান্য খরচ: ৬, ০০০ টাকা
পণ্য স্টক করা: তিন ধাপে ২০+৩০+৫০= ১০০,০০০ হাজার টাকা
কিছু টাকা ঝুঁকি তহবিল হিসেবে রাখুন: রিজার্ভ ফান্ড: ২০,০০০ টাকা
মোট: ২০০, ০০০ টাকা।
এভাবে আপনি একটা প্লান ২০০,০০০ টাকার মধ্যে করতে পারেন। তবে এই প্লান অনুসরণ করা আপনার কাজ নয়। আপনার কাজ হলো ধারনা নেয়া এবং নিজের পরিকল্পনা সব কিছু সাজিয়ে নেয়া। সফল হওয়ার জন্য আপনার চাই এমন এক ক্ষমতা যে ক্ষমতা থাকলে আপনি নিজেই পরিকল্পনা করতে পারেন। এটা দেখে আপনি কেবল নিজেকে ঝালিয়ে নিতে পারেন।

৩. যদি আপনার পুঁজি হয় মাত্র ৩০০,০০০ টাকা

অফিস: দরকার নেই, আপনার বাসাকে ঠিকানা হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন। কিন্তু ব্যবসার ধরণ ও অবস্থার উপর আপনার এটা প্রয়োজন হতে পারে।
কর্মচারী: একজন বা দুইজন লোক রাখতে পারেন: কমবেশী ২০,০০০ টাকা
ডোমেইন, হোস্টিং ওয়েবসাইট: ১০,০০০ টাকা- ২০,০০০ হাজার টাকা।
নাম লোগো ডিজাইন: নিজেই করুন, বা পরিচিত কারো সাহায্য নিন।
কার্ড প্যাড খাম ছাপা: কার্ড ৫০০, রিসিপ্ট ১৫০০, প্যাড ২০০০: মোট ৪০০০ টাকা -৫০০০ টাকা। আরো বেশী হতে পারে।
ব্রশিওর ছাপা: ২০০০ কপি: ৫০০০ টাকা। সংখ্যা ও কোয়ালিটির উপর নির্ভর করবে।
শপিং ব্যাগ ছাপা: দরকার নেই,
পেমেন্ট গেটওয়ে: এই সার্ভিসটা নিন- ২০০০ টাকা। কোনো কোনো ক্ষেত্রে আরো বেশী হতে পারে।
ব্যাংক একাউন্ট: ২০০০ টাকা। এটা কিন্তু খরচ নয়। এই টাকা আপনার একাউন্টে জমা থাকেবে।
মার্কেটিং- সোশ্যাল মিডিয়া: বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ সাইটে পেইজ খুলুন
মার্কেটিং- ব্লগ: বিভিন্ন ব্লগে নিজেই লিখুন
মার্কেটিং- ফেস্টুন: ৬০টা ফেস্টুন লাগান : খরচ ১২,০০০ টাকা
মার্কেটিং- ফোন: কিছু লোককে ফোন দিয়ে জানাতে পারেন, খরচ ৩০০০ টাকা
মার্কেটিং- এসএমএস: আপনার ফোন থেকে কমদামে এসএমএস কিনুন, খরচ ৩০০০ টাকা
মার্কেটিং- ফেইসবুক: ফেইসবুকে পেইজে লাইক ও মেম্বার বাড়ান, বুস্ট পোস্ট: ৪০০০ টাকা
মার্কেটিং- ই মেইল: পরিচিতদের মেইল পাঠান, ফ্রি। নেট বিল: ১০০০ টাকা
মার্কেটিং- লিফলেট/ স্টিকার: ৫০০০ স্টিকার বা লিফলেট ছাপুন- ৫০০০ টাকা
প্যাকিং সরঞ্জাম: অর্ডারের পরে, আপাতত অল্পকিছু কিনুন খরচ ৫০০০ টাকা
যাতায়াত ও যোগাযোগ: পণ্য ক্রয়মূল্যের সাথে হিসাব করুন। তবুও অন্যান্য : খরচ ৩০০০ টাকা
কুরিয়ার খরচ: প্রথমদিকে ৭,০০০ টাকা
ট্রেড লাইসেন্স ও টিন: ৪০০০ টাকা
ই ক্যাব মেম্বারশিপ: ৩০০০ টাকা
অন্যান্য খরচ: ৭, ০০০ টাকা
নিজের খরচ: বেতন বা সম্মানী :১০,০০০ টাকা
পণ্য স্টক করা: তিন ধাপে ৩০+৪০+৫০= ১২০,০০০ হাজার টাকা
কিছু টাকা ঝুঁকি তহবিল হিসেবে রাখুন: রিজার্ভ ফান্ড: ৬০,০০০ টাকা
মোট: ৩০০, ০০০ টাকা।
নোট: সাধারণত ব্যবসায় বাণিজ্যের আধুনিক ধারনায় একটি নতুন বিষয় যুক্ত হয়েছে। সেটা হচ্ছে নিজের বেতন যোগ করা। কারণ আপনি যে কাজটা করেন। সেটা যদি আপনি না জানতেন তাহলে অবশ্যই আপনাকে একজন লোক নিয়োগ করার প্রয়োজন হত। তাই এটা হিসেব করবেন। এর আরেকটি সুবিধা হলো, আপনার ব্যবসায় লোকসান হলেও আপনার পারিশ্রমিকটা তো আপনি পেলেন।

৪. যদি আপনার পুঁজি হয় মাত্র ৫০০,০০০ টাকা

অফিস: এটা এক্ষেত্রে দরকার হতে পারে। খরচটা কিন্তু আপেক্ষিক। তবে ব্যবসা চালানোর মতো আপনার কোনো ঠিকানা থাকলে না নিলেও চলবে।
কর্মচারী: একজন বা দুইজন লোক রাখতে পারেন: ২০,০০০ টাকা , আরো একজন নিলে আরো বাড়বে।
একজন সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটার রাখুন: ১৪,০০০। ব্যক্তি ও কাজ অনুসারে খরচ আসবে।
ডোমেইন, হোস্টিং: ১০,০০০ টাকা। ওয়েবসাইটও ১০,০০০ টাকা থেকে শুরু আপনি চাইলে ৮০,০০০ টাকা খরচ করতে পারেন। তবে সিকিউরিটি, কোয়ালিটি, মেইনটেনেন্স সব মিলিয়ে এটা ৫০,০০০ ধরে রাখতে পারেন।
নাম লোগো ডিজাইন: ৫০০০ টাকা
কার্ড প্যাড খাম ছাপা: কার্ড, রিসিপ্ট, প্যাড, মিনিপ্যাড ও খাম: ৮,০০০ টাকা। কোয়ালিটি মানসম্পন্ন এবং পরিমানে বেশী করলে এই খরচ দ্বিগুণের বেশিও হতে পারে।
ব্রশিওর ছাপা: ৫০০০ কপি: ৭,০০০ টাকা। এটা কোয়ালিটির উপর ৭০,০০০ টাকা খরচ করলেও আপনাকে কে নিষেধ করবে। কিন্তু প্রথম দিকে প্রচারণাটা যেমন একটু বেশী দরকার হবে। তেমনি হিসেব করে খরচ করাটাও গুরুত্বপূর্ণ হবে।
শপিং ব্যাগ ছাপা: ১০০০ ব্যাগ: মোট ১৫,০০০ টাকা- ২০,০০০ টাকা
পেমেন্ট গেটওয়ে: এই সার্ভিসটা নিন- ২০০০ টাকা।। আরো বেশী কেউ 10,000 টাকাও নিয়ে থাকেন।
ব্যাংক একাউন্ট: ২০০০ টাকা
মার্কেটিং- সোশ্যাল মিডিয়া: বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ সাইটে পেইজ খুলুন
মার্কেটিং- ব্লগ: বিভিন্ন ব্লগে নিজেই লিখুন
মার্কেটিং- ফেস্টুন: ১০০ টা ফেস্টুন লাগান : খরচ ২০,০০০ টাকা। যতো বেশী লাগাবেন তত বেশী খরচ।
মার্কেটিং- ফোন: কিছু লোককে ফোন দিয়ে জানাতে পারেন, খরচ ৫০০০ টাকা
মার্কেটিং- এসএমএস: আপনার ফোন থেকে কমদামে এসএমএস কিনুন, খরচ ৫০০০ টাকা
মার্কেটিং- ফেইসবুক: ফেইসবুকে পেইজে লাইক ও মেম্বার বাড়ান, বুস্ট পোস্ট: ১০,০০০ টাকা
মার্কেটিং- ই মেইল: পরিচিতদের মেইল পাঠান, ফ্রি। নেট বিল: ১০০০ টাকা
মার্কেটিং- লিফলেট/ স্টিকার: ১০,০০০ স্টিকার বা লিফলেট ছাপুন- ১৫,০০০ টাকা
মার্কেটিং এর বাজেটটা আপনি আলাদা তৈরী করবেন। তারপর খাত হিসেবে ভাগ করবেন। জরুরী নয় যে সব ধরনের মার্কেটিং করতে হবে। আপনার টার্গেট পিপল কোনটাতে বেশী আকৃষ্ট হবে। সেটা অবলম্বন করতে হবে।
প্যাকিং সরঞ্জাম: অর্ডারের পরে, আপাতত অল্পকিছু কিনুন খরচ ১০,০০০ টাকা
যাতায়াত ও যোগাযোগ: পণ্য ক্রয়মূল্যের সাথে হিসাব করুন। তবুও অন্যান্য : খরচ ৫০০০ টাকা
কুরিয়ার খরচ: প্রথমদিকে ১০,০০০ টাকা
ট্রেড লাইসেন্স, ভ্যাট ও টিন: ৫০০০ টাকা
ই ক্যাব মেম্বারশিপ: ৩০০০ টাকা
ই ক্যাবে একটি প্রোগ্রামে স্পন্সরশীপ: ৫০০০ টাকা
অন্যান্য খরচ: ১০, ০০০ টাকা
একজন প্লানিং ও মার্কেটিং কনসালটেন্ট : একবারের জন্য: ১০,০০০ টাকা
নিজের খরচ: বেতন বা সম্মানী :১৫,০০০ টাকা
পণ্য স্টক করা: তিন ধাপে ৫০+৭০+১০০= ২২০,০০০ হাজার টাকা
কিছু টাকা ঝুঁকি তহবিল হিসেবে রাখুন: রিজার্ভ ফান্ড: ৮০,০০০ টাকা
মোট: ৫০০, ০০০ টাকা।
শেষ কথা: শুধুমাত্র খরচের প্লান দিয়ে একটা কোম্পানীর সফলতা ব্যর্থতা নির্ভর করে না। আরো অনেক নিয়ামক যোগ্যতা অভিজ্ঞতা মানসিকতা ব্যবসায় বোঝা এবং পারিপার্শ্বিক অনেক বিষয়ের উপর তা নির্ভর করে । তবুও একটা ধারণা দেয়ার চেষ্টা করলাম। তবে ব্যবসায়ের ধরণ, পণ্যের ক্যাটাগরি এবং টার্গেট পিপলস এর উপর নির্ভর করে এই প্লানে অনেক হেরফের হবে।

আর একটা কথা এই প্লানটাতে মোটা দাগে ৫ ভাগের তিনভাগ অর্থ দেখানো হয়েছে পণ্য ক্রয় করার জন্য। বাকী ২ ভাগ মার্কেটিং সহ অন্য বিভাগে। আপনার পণ্য বিক্রি না হলে আপনি হয়তো সেগুলো পরে কমদামে বেচে কিছু টাকা তুলে আনতে পারবেন। কিন্তু অন্যান্য খরচ আপনার আর ফিরে আসবেনা। তাই খরচ করার সময় সঠিকভাবে করুন। জেনে বুঝে করুন। আপনার জন্য শুভ কামনা। ধন্যবাদ।

No Responses

Write a response