আর্টিকেল রাইটিং এ গড়ে তুলুন সফল ক্যারিয়ার

image

বাংলাব্লগে আপনাদের স্বাগতম।
আজকের লেখাটির মাধ্যমে আপনাদেরকে
জানাবো কিভাবে আপনিও হয়ে উঠতে
পারেন একজন সফল আর্টিকেল রাইটার।
তবে তার আগে কিছু বিষয় সম্পর্কে
আপনার পরিষ্কার ধারণা থাকা জরুরি।

ক্যারিয়ার হিসেবে আর্টিকেল রাইটিং
এর সম্ভাবনা:

ওয়েব ইন্ডাস্ট্রিতে কনটেন্ট বা আর্টিকেল
কে বলা হয় কিং। কেননা একটি তথ্যবহুল
ভালো মানের আর্টিকেল খুব সহজে একটা
সাইটকে পপুলার করে তুলতে পারে আবার
একটি নিম্ন মানের আর্টিকেল করে তুলতে
পারে সাইটটিকে সার্চ ইঞ্জিন এর কাছে
অবহেলার পাত্র। তাই, আপনি যদি
আপনার সাইটকে আপনার টার্গেট মার্কেট
এর কাছে জনপ্রিয় করে তুলতে চান তাহলে
ভালো আর্টিকেল এর কোনো তুলনা নেই। আর এই কারনেই যারা ভালো আর্টিকেল লিখতে পারেন তাদের কখনো কাজের অভাব হয়না।

যদিও বর্তমানে সকল ভাষাতেই ওয়েবসাইট
তৈরী করা যায়, কিন্তু পপুলার
মার্কেটপ্লেস গুলোতে বর্তমানে ইংলিশ,
বাংলা, হিন্দি, চীনা এবং আরবি ভাষার
আর্টিকেল রাইটার এর চাহিদা অনেক বেশি। সম্প্রতিককালে একটি সমীক্ষায় দেখা গেছে, প্রতি ঘন্টায় সমগ্র পৃথিবিতে ১৫০টিরও বেশি ওয়েবসাইট তৈরী হচ্ছে। আর যেহেতু ওয়েবসাইট তৈরী হচ্ছে তাই ওয়েবসাইট এর জন্য আর্টিকেল এরও চাহিদা বাড়ছে। তাই বুঝতেই পারছেন একজন ভালো আর্টিকেল
রাইটারদের কাজের পরিমান এবং ক্ষেত্র কি পরিমানে বাড়ছে।

কাজের ক্ষেত্র এবং কাজের রেট:

একজন ফুল টাইম আর্টিকেল রাইটার হিসেবে
আপনি যদি আপনার ক্যারিয়ার গড়তে চান
তাহলে আপনার কাজের ক্ষেত্র আছে
প্রচুর। আসুন দেখি ক্ষেত্র গুলো:

১. ব্লগপোস্ট রাইটার: আপনি যদি এই
সেক্টর এ একদম নতুন হয়ে থাকেন তাহলে
ব্লগ পোস্ট রাইটার হিসেবে আপনি কাজ
শুরু করতে পারেন। অডেস্ক দিয়ে কাজ শুরু
করলে দ্রুত কাজ পাবেন। তবে এই সেক্টর এ কাজ শুরু করতে হলে আপনাকে অবশ্যই
ইংলিশ এ ভালো হতে হবে। একদম
এক্সপার্ট হতে না পারলেও ৯০%
ভালোভাবে লিখতে পারলেও চলবে।
অনলাইন এ অনেক গ্রামার চেকার পাবেন
যেগুলো ব্যবহার করে আপনি আপনার
আর্টিকেলটিকে পারফেক্ট করে ফেলতে
পারবেন।
একদম নতুন হিসেবে আপনি ৭৫ সেন্ট -$১
৫০০ ওয়ার্ড রেট এ কাজ শুরু করতে পারেন।
যেহেতু আপনি একদম নতুন এবং আপনার
কোনো সাইট বা পোর্টফোলিও নেই তাই
শুরুতে উল্লেক্ষ্য রেট এ কাজ শুরু করলে
দ্রুত কাজ পাবেন এবং ১০ টি জব শেষ
করার পর আসতে আসতে রেট্ বাড়াতে
পারবেন। বাংলাদেশ, ইন্ডিয়া ,
ফিলিপাইনের সফল রাইটাররা $২ ১০০
ওয়ার্ড রেট এও আর্টিকেল লিখে থাকেন।
কিন্তু তার জন্য আপনাকে যথাযথ
এক্সপেরিয়েন্স, স্কিল এবং স্যাম্পল
অর্জন করতে হবে।

২. রিভিউ রাইটার: বর্তমানে অনলাইন
মার্কেটিং ইন্ডাস্ট্রিতে সবথেকে আকর্ষনীয় ব্যবসা হচ্ছে এফিলিয়েট মার্কেটিং। এবং এফিলিয়েট মার্কেটিং এর জন্য একটি ভালো সাইট এবং ভালো রিভিউ এর কোনো
বিকল্প নেই। আপনি আমাজন এর
এফিলিয়েট করুন কিংবা অন্য কোনো
ভেন্ডর এর, আপনার সাইট এ যত ভালো
প্রোডাক্ট/ সার্ভিস রিভিউ থাকবে আপনি তত ভালো ব্যবসা করতে পারবেন।
সাধারনত একটি রিভিউ ৭০০-১০০০ ওয়ার্ড
এর হয়ে থাকে। ১০০০ ওয়ার্ড এর আর্টিকেল
গুলোর জন্য আপনি শুরুতে $৩-$৪
চাইতে পারেন। মজার ব্যাপার হচ্ছে এই
ধরনের রিভিউ রাইটিং এর প্রজেক্ট গুলো
১০-১৫টা আর্টিকেল এর জন্য হয়ে থাকে।
সুতরাং আপনি যদি রিভিউ আর্টিকেল
লিখতে জানেন তাহলে একটি প্রজেক্ট এই
$৪০ থেকে $৫০ আয় করতে পারবেন।
তবে রিভিউ আর্টিকেল লেখার জন্য
অবশ্যই আপনাকে কিভাবে একটি প্রোডাক্ট
বা সার্ভিস এর features, pros এবং
cons কিভাবে বের করতে হয় তা জানতে
হবে। এর পাশাপাশি কিভাবে রিডারকে
কেনার প্রতি উদ্বুদ্ধ করতে হয় তাও
শিখতে হবে।

৩. হাউ টু এবং লেক্সিকন: হাউ -টু এবং
লেক্সিকন অনেক স্বল্প ওয়ার্ড এর হলেও
এগুলো লিখতে গেলে আপনাকে কিছুটা
এক্সপার্ট হতে হবে। কেননা এ ধরনের
আর্টিকেল এর ক্ষেত্রে এক্সপ্রেশন এবং
synonyms জানা খুবই জরুরি। এই ধরনের আর্টিকেল এর ডিমান্ড মার্কেট এ খানিকটা কম। কিন্তু যে সকল ক্লায়েন্ট এই ধরনের আর্টিকেল চাচ্ছেন তারা সাধারনত আপনাকে
শুরুতেই $৩ ৫০০ ওয়ার্ড রেট্ এ কাজ দিতে
রাজি হয়ে যাবেন।

৪. কপিরাইটার: কপিরাইটার মানে কপি পেস্ট কাজ না। কপিরাইটার হচ্ছে সেলস স্পিচ বা সেলস আর্টিকেল এর টেকনিকাল টার্ম। একজন ভালো কপিরাইটার হিসেবে আপনাকে বিজ্ঞাপনের টাইটেল, ইমেইল এর কনটেন্ট, ল্যান্ডিং পেজ এর কনটেন্ট লিখতে হবে।
আপনার দক্ষতা অনুযায়ী আপনি ৫০০
ওয়ার্ড এর জন্য $৮-$১০ চার্জ করতে
পারেন। তবে কপিরাইটার হিসেবে কাজ করতে.হলে অবশ্যই আপনাকে একজন অতুলনীয় আর্টিকেল রাইটার হতে হবে। এর কোনো বিকল্প নেই।

৫. ওয়েবসাইট কনটেন্ট: ওয়েবসাইটের জন্য
কনটেন্ট লেখার কাজটা একটু আলাদা।
এখানে আপনাকে ওয়ার্ড হিসেবে নয় বরং
পেজ হিসেবে প্রজেক্ট এ হায়ার করা হবে.
আপনাকে ওয়েবসাইটটির সাথে সামঞ্জস্য
রেখে যেই যেই স্থানে কনটেন্ট দরকার
সেখানে সেখানে আর্টিকেল লিখতে হবে।
আপনি প্রতি পেজ এর জন্য $৫-$১০ করে
শুরুতেই চার্জ করতে পারেন।

শুরুটা করবেন কিভাবে?

স্টুডেন্ট, পেশাজীবী বা চাকরিজীবিদের
জন্য আর্টিকেল রাইটিং অসাধারন একটি
পার্ট-টাইম বা সাইড ব্যবস্যা হতে পারে।
আপনি যদি ইংলিশ বা বাংলায় ভালো
লিখতে পারেন তাহলে খুব সহজেই আজকে
থেকেই আর্টিকেল রাইটার হিসেবে কাজ করা শুরু করতে পারেন। আপনি যদি এক্ষেত্রে এক্সপার্টদের সাহায্য চান তাহলে সাথেই থাকুন এর ফেইসবুক পেজ এর মাধ্যমে আমাদের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন। আপনার লেখা যদি অর্থবহুল এবং পাঠকদের উপকারী হয় তাহলে অবশ্যই আমরা আপনার আর্টিকেল আমাদের সাইট এ পোস্ট করে আপনাকে ভালো একটি
পোর্টফোলিও তৈরী করতে সাহায্য করব।
ভবিষ্যতে এই সম্পর্কিত আরো কিছু
আর্টিকেল লেখার ইচ্ছা আছে। আপডেট
থাকতে আমাদের ওয়েবসাইট এবং ফেইসবুক
পেজ এ প্রতিদিন আপডেটেড থাকুন। আজ
এই পর্যন্তই। যদি ভালো লাগে লেখাটি
তাহলে কমেন্ট এ জানান।
পরবর্তী লেখা পর্যন্ত সঙ্গে থাকুন সাথেই থাকুন।

No Responses

Write a response