আউটসোর্সিং কি ? আউটসোর্সিং কেন করবেন এবং কিভাবে করবেন ? নতুনদের জন্য পূর্নাঙ্গ গাইডলাইন

আউটসোর্সিং কি ?
===============

image

আউটসোর্সিং থেকে আয় করতে হলে সবার আগে জানতে আউটসোর্সিং কি।
আউট অর্থ বাহির । সোর্স অথ উৎস।
তাহলে কথা হচ্ছে,
আউটসোর্সিং অর্থ বাহিরের উৎস। অর্থাৎ আমরা আমাদের
নিজস্ব পেশার বাহিরে যেমন অফিসের চাকুরি, ব্যবসা বাণিজ্যের বাহিরে সম্পুর্ণ ভার্চূয়াল অফিস স্টাইলে কাজ করে
ঘরে বসে ইন্টারনেটের মাধ্যমে বাহিরের
সোর্স থেকে অর্থ উপার্জন কে আউটসোর্সিং বলে।

image

আউটসোর্সিং হচ্ছে তথা
ফ্রিল্যান্সিং শব্দের মূল অর্থ হল একটি
স্বাধ পেশা। অর্থাৎ স্বাধীনভাবে কাজ করে আয়ের একটি অন্যতম
পেশা। একটু সহজ ভাবে বলতে চাইলে, ইন্টারনেট ব্যাবস্থার মাধ্যমে অন্যকোন বা ভিন্ন ভিন্ন প্রতিষ্ঠান ভিন্ন ভিন্ন ধরনের কাজ প্রদান করে তা
ফ্রিল্যান্সারদের মাধ্যমে তা করিয়ে নেয়া । নিজের প্রতিষ্ঠান বাদে অন্য কোন ব্যক্তি অথবা কোন প্রতিষ্ঠানকে
দিয়ে এসব কাজ করানোকেই মূলত
আউটসোর্সিং বলে। যারা
আউটসোর্সিংয়ের কাজ করেন, মূলত তারাই হলেন ফ্রিল্যান্সার।

আউটসোর্সিং হচ্ছে মাল্টি বিলিয়ন ডলারের একটা বিশাল বিশ্ব বাজার। উন্নত দেশগুলো কাজের মূল্য
কমানোর জন্য আউটসোর্সিং করে থাকে। আমাদের পার্শবর্তী দেশ ভারত ও
ফিলিপাইন সেই সুযোগটিকে খুবই ভালভাবে কাজে লাগিয়ে
চলছে । আমরাও যদি আউটসোর্সিং এর
বিশাল বাজারের সামান্য অংশ কাজে লাগাতে পারি তাহলে এটি
হতে পারে বাংলাদেশের অর্থনীতি মজবুত করার মুল হাতিয়ার।

আউটসোর্সিং কাজগুলি কি?
===================

আউটসোর্সিং সাইট বা অনলাইন
মার্কেটপ্লেসে আমরা বিভিন্ন
ধরণের কাজ পেতে পারি। যেমন: Email
Marketing. SEO Search
Engine Optimization, Graphics
Design, Web Design &
Developmen,,সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্ট, নেটওয়ার্কিং ও
তথ্যব্যবস্থা, লেখা ও অনুবাদ, ডিজাইন ও মাল্টিমিডিয়া, প্রশাসনিক সহায়তা, গ্রাহকসেবা
(Customer Service),
ব্যবসাসেবা, বিক্রয় ও বিপণন ইত্যাদি। এই প্রকার কাজ ইন্টারনেট ব্যাবস্থার মাধ্যমে করে দিতে পারলেই অনলাইনে
আয় করা আপনার পক্ষে সম্ভব। এছাড়াও
আরও বিভিন্ন ধরনের উন্নতমানের কাজের ব্যাবস্থা আছে এই
বিশাল বড় আউটসোর্সিং জগতে। কিন্তু আমাদের দেশের কিছু অসাধু
ব্যাবসায়ী বাংলাদেশের সাধারণ মানুষকে
ধোকা দিয়ে যাচ্ছেন প্রতিনিয়তই নানা পদ্ধতির মাধ্যমে আউটসোর্সিং
করে খুব সহজেই আয় করার নামে মানুষকে
ধোকা দিচ্ছে।

বাস্তবে উপরে উল্লিখিত কাজগুলোতে যদি
আপনার কোন
কারিগরি কাজের দক্ষতা থাকে তবেই
কেবলমাত্র আউটসোর্সিং জগতে থেকে আপনি ভালো আয় করতে পারবেন।
কোনপ্রকার কাজের দক্ষতা ছাড়া এবং
আউটসোর্সিং সম্পর্কে
ভালকোন কিছু জানা না থাকলে ধোকা খাওয়া ছাড়া আর
কোন উপায় নেই। তাই আগে কাজ করার জন্য নিজেকে তৈরী
করুন, তারপর এই পেশায় আসার চিন্তা
ভাবনা করুণ। সত্যি বলতে
আপনি যদি আপনার কাজের দক্ষতাকে
সঠিকভাবে কাছে
লাগাতে পারেন তাহলেই আপনাকে দিয়েই
সম্ভব এই সেক্টরে দেশের হয়ে হাজার হাজার ডলার ইনকাম
করা। শুধু দরকার ইনকামের সঠিক দিক নির্দেশনা, এবং যে কাজ
করবেন তার সম্পর্কে সঠিক জ্ঞান অর্জন করা।

আউটসোর্সিং কেন করবেন
এবং কিভাবে করবেন ?
==============================

image

আমাদের
বাংলাদেশে এবং বিশ্বের প্রায় দেশেই
আউটসোর্সিং জগতে কাজ করে এমন লক্ষ লক্ষ ফ্রিল্যান্সার রয়েছেন ।কিন্তু তাদের
সবাই শতভাগ সফল হতে পারেননি। সর্বদা মনে রাখবেন
আউটসোর্সিং একটি স্বাধীন ও মুক্ত পেশা, সেখানে আপনার
ব্যক্তিগত জবাবদিহিতার চেয়ে আপনার
কাজের জবাবদিহিতা অনেক বেশি। আপনি এই জগতে আসবেন অবশ্যই আয় করার জন্য, এবং আপনি যার কাছ থেকে এই উপার্জন করবেন তাকে কোন না
কোন সেবা প্রদান করেই এই উপার্যন
আপনাকে করতে হবে। তাই
যদি হয়, আপনার কাজ যদি সঠিক না হয়,
আপনার কাজে যদি
কোন প্রকার জবাবদিহিতা না থাকে, আপনি যদি কাজ করার
ক্ষেত্রে অনেক বেশী মনযোগী না হন,
আপনার কাজে যদি অনেক বেশী স্বচ্ছতা না থাকে তাহলে আপনার পক্ষে এই
সেক্টরে সফল হওয়া সম্ভব নয়।
আউটসোর্সিং এ সর্বদা আপনি
নিজেকে দিয়ে মূল্যায়ন করবেন। আপনার
কাজের দক্ষতায় আপনাকে উপরের স্তরে যাওয়ার রাস্তা তৈরি
করে দিবে, তাই আপনাকে যে কাজ দেওয়ার হবে সেই কাজ যদি আপনি সঠিক
ভাবে সঠিক সময়ের মধ্য দিয়ে কাজটি
ক্ল্যায়িন্তকে প্রদান করতে না পারেন তাহলে আপনাকে সেখান
থেকে ছিটকে যেতে হবে সেই মুহূর্তেই, আর যদি তা পজিটিভ হয়, তাহলে সেও খুশি
থাকবে এবং আপনারও ভবিষতে কাজ পাবার সম্ভাবনাও বেড়ে
অনেক খানি বেড়ে যাবে। আউটসোর্সিং থেকে

কি কি ভাবে আয় করা যায? ==============================

আউটসোর্সিং থেকে আয় করার অনেক উপায় আছে । তবে প্রত্যেক টি বিষয় সম্পকে অবশ্যই আমাদের
ভালো ভাবে জানতে হবে । আমরা বিভিন্ন রকম ডিজাইনের কাজ,
মার্কেটিং করা সহ আরো অনেক কাজ করে আয় করতে পারি ।

image

যেমন:- ডিজাইনের কাজ ডিজাইনের কাজের মধ্যে অনেক রকম
ডিজাইনের কাজ
রয়েছে ।
যেমন :- ১) গ্রাফিক্স ডিজাইন ২)
ওয়েব ডিজাইন 3. Web design & development ৪) ওয়ার্ড প্রেস ৫) ফ্লাশ
এ্যানিমেশন ৬) ভিডিও এডিটিং 7. Email
Marketing

মার্কেটিং : ===== অনলাইনে বিভিন্ন ধরনের মার্কেটিং রয়েছে।

যেমন :- ১) এ্যাফিলেট মার্কেটিং

এ্যাডসেন্স :
=====

এ্যাডসেন্স বলতে আমরা অধিকাংশই শুধু
Google Adsense এর কথা মনে করি ।
কিন্তু এটা ঠিক না । Google Adsense ছাড়াও আরো অনেক
Adsense রয়েছে ।

যেমন :-
1. Bidvertizer 2. Clicksor Adbrite 3. 360adds

এছাড়া ডাটা এন্ট্রি, আর্টিকেল রাইটিং,
মাল্টিমিডিয়ার কাজ সহ
হাজার ও রকমের রয়েছে । আউটসোর্সিং
টিটোরিয়ালের পেজে মূলত আমরা দেখবো আউটসোসিং এর কাজ
গুলো কোথায় পাবো ।
আউটসোসিং কাজের জন্য কিছু মার্কেট
প্লেস রয়েছে ।

যেমন :- আউটসোসিং কাজের জন্য কিছু

মার্কেট প্লেস:
=========================

image

1.) www.freelancer.com
2)www.oDesk.com
3) www.scriptlance.com
4) www.elance.com
5) www.themeforest.net
6) www.graphicriver.net
7) www.99design.com
8) www.microworkers.com
9)www.joomlalancer.com
10 ) www.guru.com

উপরের মার্কেট প্লেস গুলোতে রয়েছে হাজার রকমের অফুরন্ত কাজ । আর
এই সব মার্কেট প্লেস গুলোতে কাজ করতে
হলে জানতে হবে এখানে কি ভাবে কাজ গুলো পেতে পারি এবং যে কাজ গুলো
করবো সেই কাজ গুলো আগে ভালো ভাবে
শিখতে হবে

1

No Responses

Write a response