অনলাইন মার্কেটিং করার জন্য টাইটেল এবং কন্টেন্ট প্ল্যান- অবশ্যই যা মাথায় রাখতে হয়

Banglablog
Banglablog – World's Best, The Biggest and Most Wanted Bangla Technology Social Network, Blogging Platform & Online Community | যুগটেক | যুগের সাথে তাল মিলিয়ে আমরাই প্রথম।

আমি মোঃ শহিদুল ইসলাম রবিন।  বেশ কয়েকবছর যাবত এস ই ও/ অনলাইন মার্কেটিং নিয়ে কাজ করছি,রয়েছে নিজের বেশ কয়েকটা প্রোজেক্ট। তবে আমার বেশিরভাগ কাজের ক্ষেত্র হল মার্কেটিং নিয়ে যদিও এই বিষয়ে আমার কোন ডিগ্রি নেই। ;)

ভাবলাম আমার কাজের জগত থেকে ছোট ছোট কিছু বিষয় সকলের সাথে শেয়ার করা উচিৎ। নিজের চর্চার পাশাপাশি সবাই জানতে পারলো।

সেই নিমিত্তে আজকে আমি জানাবো আসলে কি কি পদ্ধতি অবলম্বন করে আমি টাইটেল এর প্ল্যান  করে থাকি,কন্টেন্ট এর গুরুত্ব নিয়ে নিজের ভাবনাগুলুকে কিভাবে আমি ভাবি – এই বেপারগুলো।

অনলাইন মার্কেটিং

অনলাইন মার্কেটিং

তো চলুন কথা না বাড়িয়ে শুরু করা যাকঃ

 

১. সবচাইতে গুরুত্ব দেই টাইটেল এর দিকেঃ আমি যখন কোন কন্টেন্ট এর প্ল্যান করি প্রথমেই এবং সবচাইতে বেশি গুরুত্ব দেই টাইটেল এর দিকে।

আচ্ছা ভাবুনতো, আপনি এস ই ও বা অনলাইনে মার্কেটিং করার চিন্তা করছেন,কেউ কি সার্চ করে আগে আপনার কন্টেন্ট পড়বে নাকি আগে আপনার টাইটেল তাকে মুগ্ধ করলে সে এমনিতেই আপনার সাইট বা ব্লগে আসবে ??

উত্তরটা নিশ্চয় হবে আগে তো টাইটেল দেখবে।

সুতরাং আমাদের সবচাইতে বেশি গুরুত্ব দিতে হবে এই টাইটেল এর দিকেই। ভালো একটা টাইটেল আপনাকে দিবে অনেক প্রকার সুবিধা।

. টার্গেট করা কি ওয়ার্ড নিয়ে  ঘাটাঘাটি করি অনেক বেশিঃ

আপনি হয়ত কোন একটা টপিক নিয়ে কন্টেন্ট লিখবেন্‌ সেই টপিক এর জন্য নিশ্চয় কিছু কি ওয়ার্ড টার্গেট করে কাজ করবেন যার মাঝে রয়েছে আপনার মেইন কি ওয়ার্ডটি। সেই কি ওয়ার্ড নিয়ে প্রথমেই আমি যা করি গুগলে একটা সার্চ দেই, সাথে সাথে ইমেজ,ভিডিও এবং কাস্টম সার্চ করি সেই কি ওয়ার্ড নিয়ে জানার জন্য। খুঁজে পেতে চেষ্টা করি গত ১ মাসের ফলাফল, গত ৬ মাসের ফলাফল, গত ১ বছরের ফলাফল এবং চোখ সর্বদাই আটকে থাকে কত গুলু ইনডেক্স রয়েছে গুগলের কাছে বা সার্চ ইঞ্জিনগুলুতে। সাথে তো কম্পিটিটর রিসার্চ করতেই হয় উনাদের সম্পর্কে জানার জন্য।

এই সকল বিষয় একত্রে করে একটা ভালো প্ল্যান করি আমিঃকিভাবে কাজ করতে পারলে আমি আমার প্রতিযোগীদের থেকে বেশি সুবিধা আদায় করতে পারবো। আর এই ভাবনার কারন একটাই-আমার কাজ থেকে সর্বাত্মক সুবিধা আদায় করা।

০৩. কল্পনা করিঃ আমি এই টাইটেল এর পাঠক।

এত কষ্ট করে আমি একটা কন্টেন্ট লিখলাম।

কেন লিখলাম ??

কোথায় লিখলাম ???

কার জন্য লিখলাম ????

নিশ্চয় মানুষ পড়বে বলেই তো আমরা কন্টেন্ট লিখে থাকি।আমি সবসময় ভাবি আমি সেই দলের একজন যারা এই লেখাটি পড়বে এবং সর্বাত্মক খুশি হবে লেখাটি পড়ে পরের লেখাটার জন্য অপেক্ষা করবে।

০৪.সার্চ ইঞ্জিনে আমার অবস্থান কল্পনাঃ

আমি কল্পনা করতেই পারি যে আমার লেখা কন্টেন্টটি সার্চ ইঞ্জিনের ১  নাম্বারে না থেকে ৩/৪/৫ নাম্বারে বা ১০ নাম্বারের আগে রয়েছে । অবস্থান একটু দূরে হলেও পাঠক যেন রাঙ্ক করা টাইটেলগুলো থেকে আমার টাইটেলটাকে বেশি গুরুত্ব দেয়।কারন ভেতরের লেখাগুলু পড়ার আগেই কিন্তু সে টাইটেল দেখছে, টাইটেল ভালো লাগলে সে যদি সত্যি ভালো মানের কন্টেন্ট পড়তে উৎসাহী হয়ে থাকে তবে রাঙ্কিং পাওয়া কন্টেন্ট এর দিকে না চেয়ে সে আমার কন্টেন্ট পড়তে চাইবে।কারন সবাই যখন কিছু একটা পেতে চায় তখন একটু ভালোটার দিকেই হাত বাড়ায় ।

০৫. টাইটেলে একটু হালকা মজা করার চেষ্টা করিঃ

আপনি সর্বদাই রোবট এর মত একাধারে টাইটেল লিখেই যাবেন আর লিখেই যাবেন–এটা হতে পারে না। আপনি যখন আপনার সাইটম্যাপ থেকে সব গুলু টাইটেল একত্রে করে দেখবেন তখনি বুঝে যাবেন আসলেই আপনি কেমন পারফর্ম করেছেন। তাই মাঝে মাঝে আপনার টার্গেট করা পাঠকদের জন্য টাইটেলে মজার কিছু রাখুন। দেখবেন পাঠক যেমন মজাও পাবে এবং এটা আপনার সাইটে সেই পাঠককে ফিরিয়ে আনার জন্যও কাজ করবে। কারন সে এক ধরনের টাইটেল দেখতে দেখতে অভ্যস্ত না, সে যা চায় ঠিক তাই যদি আপনি দিতে পারেন তবে আপনি চিরতরে পেয়ে যাবেন কিছু পাঠক। তবে যতই মজা করি না কেন সেটা টপিক রিলেটেড অবশ্যই হতে হবে।

০৭.কন্টেন্টের ভেতরে ভালো কিছু রয়েছে এমন ইঙ্গিত দিতে চেষ্টা করি সর্বদাইঃ

আমি খুব যত্ন করে একটা আর্টিকেল লিখলাম সেটার কিছু ইঙ্গিত আমি টাইটেলের মাঝে রাখতেই পারি। এতে করে খুব সহজেই পাঠকরা বুঝে নিতে পারবে তাদের প্রয়োজনটা কি আদৌ আমার এই কন্টেন্ট পুরন করতে পারবে কিনা। কিন্তু টাইটেল দেখে কন্টেন্ট এর ভেতরে যদি সেটার কোন ছিটেফোঁটাও না থাকে তবেই হবে মহাবিপদ। আপনি টাইটেল দ্বারা মানুষকে প্রভাবিত করছেন সেটার ফলাফল যদি কন্টেন্টে না থাকে তবে কিন্তু হিতে বিপরীত হবে। সুতরাং সাবধান হউন আরও বেশি করে।

 ০৮.টাইটেল একটু লম্বা করি টার্গেট পুরনের জন্যঃ

ছোট ছোট টাইটেল এর চাইতে একটু লং টেইল কি ওয়ার্ড এর মত করে টাইটেল বানানোর চেষ্টা করি আমি। এতে করে অনেক বেশি অর্থবহ করে তোলা যায় টাইটেলটিকে। এবং অনেক বেশি সুবিধা আদায় করা যায় । আপনি যদি একটু বেশি সময় পান তবে যেমন একজনকে বোঝাতে সহজ হয় ঠিক তেমনি টাইটেল যদি একটু বড় করতে পারেন তবেই আপনার টার্গেট করা পাঠককে আপনি আকৃষ্ট করতে সক্ষম হবেন।

০৯.প্রতিযোগীদের সাথে বিচার করি নিখুঁতভাবেঃ সবশেষে আমি রাঙ্কে থাকা প্রতিযোগীদের সাথে মিলিয়ে দেখি,যদি সন্তুষ্টির হার ৮০% এর উপরে থাকে তবেই সেটা পাবলিশ করি।
আপনি সব কিছু ঠিক ঠাক ভাবে করলেন আপনার মতে। এইবার চলুন যুদ্ধক্ষেত্রে-যেখানে আগে থেকেই রয়েছে আপনার শক্ত প্রতিপক্ষ। তাদের টাইটেল এর ধারের কাছে যদি আপনার টাইটেল এর ধার কমে যায় আপনি অবশ্যই হেরে যাবেন, আর যদি তাদের চাইতে বেশি ভালো ধার থাকে তবে তারা অনেক অভিজ্ঞতাসম্পন্ন যোদ্ধা (এইক্ষেত্রে পুরাতন বা বয়স্ক কন্টেন্ট বোঝানো হয়েছে) হলেও আপনার জন্য খুব বেশি সমস্যা হবে না।

১০.কাজের ক্ষেত্রে মনে প্রানে বিশ্বাস করিঃ যে কোন কাজে একটা ভালো প্ল্যান অনেক বেশি কাজ করার চাইতে অধিক উত্তম।  সুতরাং বেশি বেশি জোর দেন আপনার প্ল্যানের প্রতি। ভালো একটা প্ল্যান আপনাকে অনেকদিন পর্যন্ত সুবিধা প্রদান করতে পারে।

সবশেষে কথা একটাইঃ আপনি যা করছেন সেটার যদি ভালো একটা প্ল্যান না দাড় করাতে পারেন তবে আপনার সমস্ত কাজ বৃথা হয়ে যেতে সময় লাগবে না। সুতরাং আগে করুন একটা প্রফিটেবল প্ল্যান এবং সেই নিমিত্তে কাজ শুরু করেন। নিজেই নিজের প্রতিদ্বন্দ্বী হয়ে যাচাই করুন নিজের কাজ সম্পর্কে। ফলাফল যদি আপনাকে সন্তুষ্ট করে তবেই হল। আর অনলাইনে কাজ করার জন্য আপনি হাজার রকমের রিসোর্স পাবেন, একেক জন একেক রকম ভাবে কাজ করে থাকে। তবে সকলের সকল টিপস যে আপনার জন্য উপকারী সেটা ভাবার অবকাশ নেই। আপনার জন্যই যা উপকারী সেটা রেখে বাকিসব মন থেকে মুছে ফেলুন।

আল্লাহ্‌ রহম করলে আর সঠিকভাবে কাজ করতে পারলে সফলতা আসতে বাধ্য।

অনলাইন মার্কেটিং করার জন্য টাইটেল এবং কন্টেন্ট প্ল্যান- অবশ্যই যা মাথায় রাখতে হয়
নীরব মানুষ

সোর্স্ল ইন্টারনেটের রাজ্য

1

No Responses

Write a response